সংসদ নির্বাচনে প্রচারণার মাইকিং নিজেই করছেন প্রার্থী 

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিজের প্রচারণার মাইকিং নিজে করে বেশ আলোচনায় এসেছেন এক প্রার্থী। একটি অটোরিকশায় করে একাই করছেন এই মাইকিং। আর চা-পান খাচ্ছেন ভোটারদের কাছ থেকেই। এতে যেখানেই দাঁড়াচ্ছেন সেখানেই জমায়েত লক্ষ্য করা যাচ্ছে কৌতুহলী জনতা। অন্যদিকে কোন প্রকার ব্যানার বা পোস্টার করেননি সেই আলোচিত প্রার্থী। 

এরকম একজন প্রার্থী আব্দুল হাই মাস্টার। কুড়িগ্রাম-১ আসনে জাকের পার্টি থেকে গোলাপ ফুল প্রতীকে লড়ছেন তিনি।

প্রার্থী আব্দুল হাই মাস্টার বলেন, পোস্টার ব্যানারে যে খরচ হয়, সেই টাকা জনগণের কাছ থেকেই তুলে নেন জনপ্রতিনিধিরা। তাই তিনি নিজের জন্য কোনো পোস্টার বা ব্যানার তৈরি করেননি।

জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলার ভরতেরছড়া গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল হাই। ১৯৯৫ সালে চর ভুরুঙ্গামারী উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন তিনি। ২০০৯ সালে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

২০১৪ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও বিজয়ী প্রার্থীর কাছাকাছি ভোট পান তিনি। এবারের নির্বাচনেও তাকে নিয়ে বেশ আশাবাদী ভোটাররা।

নির্বাচনি হলফনামায় দেয়া তথ্য অনুযায়ী, কুড়িগ্রামের এই প্রার্থীর সম্পদ বলতে আছে ২৪ শতক জমিতে বসতভিটা আর ২ বিঘা আবাদি জমি।

উল্লেখ্য, তার সমাজকল্যাণ মূলক কর্মকান্ড, জনপ্রতিনিধি থাকা অবস্থায় শ্রমিকদের সাথে কাজের বিনিময়ে খাদ্য কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ এবং বিভিন্ন ভালো কাজের জন্য বিটিভির জনপ্রিয় অনুষ্ঠান ইত্যাদিতে সাক্ষাতকার নিয়েছিলেন উপস্থাপক হানিফ সংকেত।

এছাড়াও সুন্দরবনে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের প্রতিবাদে সীমান্তবর্তী উপজেলা ভুরুঙ্গামারী থেকে বাইসাইকেলযোগে সুন্দরবন পর্যন্ত লংমার্চ করে গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছিলেন এই আব্দুল হাই মাস্টার।

মোঃ মনিরুজ্জামান, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি