এই শতাব্দীর সপ্তম বৃহৎ পাথরখণ্ড মিলল কানাডার খনিতে

দুর্লভ এক হীরকখণ্ড পাওয়া গেছে কানাডার খনি থেকে। হীরক খণ্ডটির ওজন ৫৫২ ক্যারেট। আর এর আকার অনেকটা মুরগির ডিমের মতো। দুষ্প্রাপ্য এই হীরকখণ্ডটি মূল্যের দিক থেকেও অনেক মূল্যবান।

কানাডার উত্তরের বরফ আবৃত একটি এলাকার খনি থেকে দুর্লভ এক হীরকখণ্ড পাওয়া গেছে। এটি দেখতে অনেকটা মুরগির ডিমের মতো। এর শরীর যদিও খসখসে তবে রং অনেকটা স্বর্ণের মতো। সোনার মতো হলুদ রঙের দুষ্প্রাপ্য হীরকখণ্ডটি মূল্যের দিক থেকেও দুর্মূল্য। তবে এর আনুমানিক দাম কত হতে পারে তা নিয়ে এখনই কোনো মন্তব্য করা হয়নি। এর আগেও বিভিন্ন উচ্চমানের হীরা এই খনি থেকে পাওয়া গেলেও এত বড় আকারের হীরা এর আগে ওঠেনি।

ওই হীরক খণ্ডটি ডিয়াভিক খনিতে খুঁজে পান ‘ডমিনিয়ন ডায়মন্ড মাইনস’ ও ‘রিও টিনটো’ গ্রুপের বিশেষজ্ঞরা। ডমিয়নের সিইও শেন ডার্গিন জানান, সোনালি হলুদ রঙের এই হীরকখণ্ড ওই খনি থেকে পাওয়া আগের পাথরগুলির রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। আকারে পূর্বের তুলনায় প্রায় তিনগুণ বড় এটি। ডিয়াভিক খনিটির মালিকানা রিও টিনটো গ্রুপের অধীনে। খুব শিগগিরই এই পাথরটি কাটা ও তার রুক্ষতা কমিয়ে পালিশ করার জন্য নিলাম হাঁকা হবে বলে তারা জানিয়েছেন।

 

প্রসঙ্গত, ব্লুমবার্গ তথ্য মতে, এটি এই শতাব্দীর সপ্তম বৃহৎ পাথরখণ্ড। গোটা বিশ্বের ৩০টি বৃহৎ পাথরের তালিকায় অনায়াসেই ঠাঁই পাবে এটি।