আগামী ১৮ ডিসেম্বর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করবেন শেখ হাসিনা

আগামী ১৮ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) সকাল ১০টায় হোটেল সোনারগাঁওয়ে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী। এছাড়াও ঢাকাসহ পাঁচটি স্থানে জনসভা করবে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ঢাকাসহ পাঁচটি স্থানে জনসভা করবেন শেখ হাসিনা। এছাড়া বাইরে দশ জেলার নির্বাচনী জনসভায় ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্যও রাখবেন তিনি। আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, “আগামী ২১ ডিসেম্বর দুপুর ২টায় গুলশানে এবং ২৪ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় কামরাঙ্গীরচর মাঠে সমাবেশ করবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী। ঢাকার বাইরে ২২ ডিসেম্বর সিলেট তিনটি মাজার জিয়ারতের পর দুপুর ২টায় সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে এবং ২৩ ডিসেম্বর দুপুর ২টায় পীরগঞ্জ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জনসভা করবেন শেখ হাসিনা।” এছাড়া পীরগঞ্জে যাওয়ার পথে রংপুর-২ নির্বাচনী এলাকায় (তারাগঞ্জ-বদরগঞ্জে) সকালে একটি জনসভায় অংশগ্রহণ করবেন বলেও জানান তিনি।

এর বাইরে তিন দিনে ১০ জেলায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী নির্বাচনী জনসভা করবেন বলেও জানান বিপ্লব বড়ুয়া। তিনি বলেন, “১৮ ডিসেম্বর বিকাল ৩টায় লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার বাসভবন সুধাসদন থেকে নড়াইলে মাশরাফি বিন মর্তুজা, কিশোরগঞ্জে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, বান্দরবানে বীর বাহাদুর উশৈসিং নির্বাচনী এলাকায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জনসমাবেশ করবেন শেখ হাসিনা। ৯ ডিসেম্বর বিকেল ৪টায় র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর নির্বাচনী আসন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়, কক্সবাজারে সাইমুন সিদ্দিক কমলের নির্বাচনী এলাকার, পিরোজপুরের শ ম রেজাউল করিম এবং চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের নির্বাচনী এলাকায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জনসভায় বক্তব্য রাখবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী।”

এছাড়াও ২০ ডিসেম্বর সকাল ১১টায় গাইবান্ধা-৫ আসনে ফজলে রাব্বী, জয়পুরহাটের আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, রাজশাহীর ওমর ফারুকের নির্বাচনী এলাকায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জনসভায় বক্তব্য রাখবেন তিনি। ১৮ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় হোটেল সোনারগাঁওয়ে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। ১৭ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তিনি।

উল্লেখ্য, নির্ধারিত এলাকার নেতাকর্মীদের বাইরে ওই জেলার আওয়ামী লীগ ও মহাজোটের সকল নেতাকর্মীদের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে বলেও জানান বিপ্লব বড়ুয়া।