‘মানুষজন একসময় ফরিদপুরকে ফকিরপুর বলতো’

আওয়ামীলীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে আওয়ামীলীগ সরকার গত দু দফায় বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছে। এবার জনগণের রায় নিয়ে ক্ষমতায় আসলে বাংলাদেশ উন্নত দেশে পরিণত হবে। এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগামী নির্বাচনে জয়লাভ করে ক্ষমতায় আসলে ফরিদপুরকে বিভাগ করাসহ দক্ষিণাঞ্চলের ব্যাপক উন্নয়ন করা হবে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৩ ডিসেম্বর) ফরিদপুরের কোমরপুরে পথসভায় প্রধান অতিথির ভাষণে আওয়ামীলীগ সভনেত্রী ও প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

নির্বাচনী পথসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি-জামাত জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে। তারা আগুনে পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা সমুদ্রসীমা বিজয় করেছি। অথচ জিয়া, এরশাদ খালেদা কেউ এ কথা কখনো চিন্তাই করতে পারেনি।

তিনি বলেন, একসময় মানুষজন ফরিদপুরকে ফকিরপুর বলতো। কারণ এখানে কোন উন্নয়ন করা হতো না। আমরা ফরিদপুরে উন্নয়নের কার্যক্রম শুরু করেছি। আগামীতে ফরিদপুরকে বিভাগে পরিণত করা হবে।

এ সময় তিনি ফরিদপুর-৩ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে পরিচিত করিয়ে দেন। বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে তিনি স্বাধীনতা বিরোধী চক্র ও আগুন সন্ত্রাসীদেরকে বর্জনের কথা বলেন। তারা যেন ক্ষমতায় না আসতে পারে সে জন্য সকলকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহেনা, ফরিদপুর সদর আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএন মোজাম্মেল হক, বাহারউদ্দিন নাছিম, আহম্মেদ হোসেন, যুবলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরী, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত সিকদার, কৃষকলীগের কেন্দ্রী সহ-সভাপতি আরিফুর রহমান দোলন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী, ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. সুবল চন্দ্র সাহা, জেলা যুবলীগের আহবায়ক এএইচএম ফোয়াদ, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী বরকত ইবনে সালাম প্রমুখ।

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি