দফায় দফায় হামলা হয়েছে বিএনপির নির্বাচনী মিছিলে

দফায় দফায় হামলা হয়েছে বিএনপির নির্বাচনী মিছিলে। আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে এই ঘটনা ঘটে নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায়। কমপক্ষে ৩০ জন আহত বলে বিএনপির দাবি।

আজ নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায় বিএনপির উপর দফায় দফায় হামলা হওয়াতে নোয়াখালী-৫ (কোম্পানীগঞ্জ ও কবিরহাট) এলাকায় নির্বাচনী পথসভায় যোগ দিতে পারেননি প্রার্থী মওদুদ আহমদ। স্থানীয় বিএনপি সমার্থকদের দাবি এই ঘটনায় ৩০ জন আহত হয়েছেন। ভাঙচুর করা হয়েছে দলীয় কার্যালয়, বাড়িঘর ও দোকানপাট। আর এই উদ্ভূত পরিস্থিতির কারণেই কবিরহাটে নোয়াখালী-৫ (কোম্পানীগঞ্জ ও কবিরহাট) আসনে বিএনপির নির্বাচনী পথসভায় যোগ দিতে পারেননি প্রার্থী মওদুদ আহমদ। তিনি কোম্পানীগঞ্জে সিরাজপুরের গ্যাস ফিল্ড এলাকায় এসে ফের কোম্পানীগঞ্জের নিজ বাড়িতে ফিরে যান।

এই হামলার ঘটনার জন্য ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগকে দায়ী করেছেন বিএনপির প্রার্থী মওদুদ আহমদ। তিনি বলেন, পুলিশের উপস্থিতিতে তাঁর পথসভায় আসা মিছিলে দফায় দফায় হামলা হলেও তাঁরা নীরব ভূমিকা পালন করে। হামলায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের অনেক নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন বলে তিনি দাবি করেন। তিনি অভিযোগ করেন, হামলা ও বাঁধার খবর পেয়ে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা, রিটার্নিং কর্মকর্তা এবং পুলিশ সুপারকে বারবার ফোন করেও তাঁদের কাছ থেকে কোনো ধরনের সহায়তা পাননি তিনি। পরে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা তাঁকে ফোন করে কবিরহাটে প্রবেশ করা তাঁর জন্য নিরাপদ নয় বলে, তাঁকে কবিরহাটে না যেতে অনুরোধ করেন। এ অবস্থায় সুষ্ঠু নির্বাচনের ন্যূনতম পরিবেশ নেই বলেও উল্লেখ করেন মওদুদ।

স্থানীয় বিএনপি নেতা-কর্মীরা দাবি করেন, দলের কর্মীরা মিছিল নিয়ে যাওয়ার পথে ভূঁইয়ারহাট, কবিরহাট জিরো পয়েন্ট, পৌরসভার সামনে, নতুন হাসপাতাল রোড, কলেজ রোডসহ বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের হামলা ও ধাওয়ার শিকার হন। এ সময় বাজারের একাধিক দোকানে ও বাড়িতেও হামলা চালানো হয়েছে। আশপাশে বিপুল সংখ্যক পুলিশ উপস্থিত থাকলেও তাঁরা নীরব ভূমিকা পালন করে।

হামলায় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুল হুদা চৌধুরী ছাড়াও বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের কর্মী মো. মোহন, ফরহাদ হোসেন, সো. সোহেল, আবু ইউছুফ, মো. পাভেল, জামাল উদ্দিন, মো. হানিফ, সহিদ উল্যাহ, আবুল বাশার, মো. শাহীন, রিধন হোসেন, আবদুস সাত্তার, জসিম উদ্দিনসহ অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের স্থানীয় উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে কবিরহাট পৌর বিএনপির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান জানিয়েছেন।