চাঞ্চল্যকর মনিরা হত্যা মামলা তুলে নিতে চাপ, দুইটি গরু ও ৩টি ছাগল লুট!

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার অচিন্তনগর গ্রামে নৃশংস ভাবে খুনের শিকার ৫ বছরের শিশু মনিরা খাতুন হত্যা মামলা তুলে নিতে আসামীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। সোমবার এ ঘটনার জের ধরে অচিন্তনগর আসামী পক্ষের লোকজন হামলা চালিয়ে হতদরিদ্র দিন মজুর ইদ্রিস আলীর বাড়ি ভাংচুর করেছে। তার দুইটি গরু ও ৩টি ছাগল নিয়ে গেছে। আর হামলার ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে নিহত মনিরার পিতা ও মামলার বাদী রমজান আলী।

ইদ্রিস আলী অভিযোগ করেন আমি মাঠে ধান কাটার কাজ করছিলাম। এমন সময় আমার খালাতো ভাই পানামি গ্রামের ইউনুস মন্ডল মাঠে এসে খবর দেয় কে বা করা আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে দুইটি গরু ও ৩টি ছগল নিয়ে গেছে। তিনি বলেন আমি বাড়ি যেতে চাইলে আমার ছেলে নাজমুল বাড়ি যেতে নিষেধ করেন। মনিরা হত্যা মামলার বাদী সাবেক মেম্বর রজমান আলী মুঠোফোনে অভিযোগ করেন মামলাটি এখন শেষ পর্যায়ে। একজনমাত্র সাক্ষি বাকি আছে। এ অবস্থায় আসামীরা মামলা তুলে নিতে চাপ দিচ্ছে। তিনি এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বলেও জানান। বিষয়টি নিয়ে ঝিনাইদহ ঝিনাইদহ থানা পুলিশ ও পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের কোন কর্মকর্তা তথ্য দিতে পারেনি।

সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, ওই গ্রামে এমন কোন ঘটনা ঘটেনি। উল্লেখ্য ২০১৫ সালের ৭ জুলাই ৩ লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবীতে শিশু মনিরাকে অপহরণ করে এসিডে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। এই মামলায় আসামী হচ্ছে জাফর, মিন্টু ও শিপন। তাদের নেতৃত্বেই অচিন্তনগর গ্রামে হামলা করা হয় বলে বাদীর অভিযোগ।

মোঃ জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি