জাবিতে ইউজিসির অনুমোদন ছাড়া চলছে রিমোটি সেন্সিং ইনস্টিটিউট

ইউজিসির অনুমোদন ছাড়াই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) “ইনস্টিটিউট অব রিমোট সেন্সিং” নামের একটি ইনস্টিটিউট পরিচালতি হচ্ছে। আর ইউজিসির অনুমোদন না নিয়ে ইনস্টিটিউট খোলার ফলে নিয়মভঙ্গের প্রশ্ন তুলেছে অনেকে।

“ইনস্টিটিউট অব রিমোট সেন্সিং” নামের এ ইনস্টিটিউট খোলার অনুমতি দুই দফায় ইউজিসি মনোনীত সদস্যদের পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে বাদ দেয়া হয়। এরপরেও বর্তমান উপাচার্য এ ইন্সটিটিউটের পরিচালক নিয়োগের মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু করেছেন বলে অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে।

অনুসন্ধান থেকে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সি-িকেট সভায় এই ইনস্টিটিউট করার বিষয় পাশ করিয়ে নিলেও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অনুমোদনের তোয়াক্কা করেননি উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম। নিয়ম বহির্ভূতভাবে তিনি এ ইনস্টিটিউট পরিচালনার জন্য শেখ তৌহিদুল ইসলামকে দায়িত্ব প্রদান করে এর কার্যক্রম শুরু করেন।

অনুসন্ধানে আরো জানা যায়, ‘উক্ত ইনস্টিটিউট খোলা যাবে কি না, এর পরিবেশ আছে কি না সেটি যাচাই করতে ইউজিসি অধ্যাপক দিল আফরোজাকে দায়িত্ব দেয়। তিনি এই ইন্সটিটিউট চালু করার ব্যাপারে ‘না’ করে দেন। এরপর দ্বিতীয় দফায় ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লাকে দায়িত্ব দিলে তিনিও জাবিতে নতুন এ ইন্সটিটিউট চালু না করার সুপারিশ করেন।

পরবর্তীতে তৃতীয় আরেকজন অধ্যাপক ড. মো. শাহনেওয়াজকে দায়িত্ব দেয়া হয়। কিন্তু তার সুপারিশের পূর্বেই অবৈধভাবে এই ইনস্টিটিউটের কার্যক্রম শুরু করেন উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮ সালের ডায়েরি থেকে দেখা যায় এই ইনস্টিটিউট এর নাম রয়েছে এবং এর পরিচালকের নামও দেখা যায়।

জানা যায়, ১৯৮২ সালের ২৬ ডিসেম্বর ৪২ তম নিয়মিত একাডেমিক কাউন্সিল সভায় এই ইনস্টিটিউট খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। পরবর্তীতে ২০১৭ সালের ১৭ জুন অনুষ্ঠিত সিনেট সভায় এটি অনুমোদি হয়। এর আগে এই ইনস্টিটিউট খোলার বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০১ তম সিন্ডিকেট সভায় অনুমোদিত হয়।

এ বিষয়ে ইনস্টিটিউট অব রিমোট সেনসিং এর পরিচালক শেখ তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘বিশ^বিদ্যালয়ের কোন বিভাগ, ইনস্টিটিউট গঠন করার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে সিন্ডিকেট সভা। ইউজিসি থেকে শুধু অনুমোদন নিতে হয়। আমরা অনুমোদন নেওয়ার জন্য দুইবার ইউজিসির কাছে চিঠি লিখেছি এখনো অনুমোদন পায়নি তবে অনুমোদন না দেওয়া পর্যন্ত আমরা আবেদন করেই যাবো।’

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন, ‘নতুন একটা ইনস্টিটিউট খোলার ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের কাছে মোট তিনবার আবেদন করেছে। আমরা পর্যালোচনা করে দেখেছি এই ইনস্টিটিউটের দরকার নাই। যার কারণে আমরা এখনো অনুমোদন দেয়নি। অনুমোদন ছাড়া ইনস্টিটিউট খোলার কোন আইন নেই এবং খুলতে পারে না।’

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অনুমতিবিহীন এই ইন্সটিটিউট চালুর ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষকের সাথে কথা হলে তিনি বলেন,‘ভিসি কাউকেই তোয়াক্কা করেনা, মঞ্জুরি কমিশন যেন তার কাছে কিছুইনা।’

এ ব্যাপারে উপাচার্য ফারজানা ইসলামের সাথে কথা বলতে তার সেলফোনে একাধিকবার চেষ্টা করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ- উপাচার্য (শিক্ষা) নূরুল আলমের ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

রুদ্র আজাদ, জাবি প্রতিনিধি