‘নির্বাচন পেছানোর জন্য পরিকল্পিতভাবে পুলিশের ওপর এই হামলা’

রাজধানীর নয়াপল্টনে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপির কার্যালয়ের সামনে মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে তারা পুলিশের উপর হামলা হয়েছে। পুলিশের দুটি গাড়ি তারা পুড়িয়ে দিয়েছে।’

আজ বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার পর বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘আপনারা দেখেছেন, আমাদের এখানে তাদের থেকে বেশি জমায়েত হয়েছিল। এমনও দেখেছেন মাশরাফি বিন মর্তুজাকে পেছন দিক থেকে দেড় কিলোমিটার হেঁটে এ অফিসে আসতে হয়েছিল।  সে তুলনায় এমন কি ভিড় তাদের হয়েছিল? পুলিশ আমাদের এখানেও ছিল নিরাপত্তার জন্য।

তিনি বলেন, ‘সম্পূর্ণ বিনা উসকানিতে মির্জা আব্বাসের নেতৃতে আজ তারা পুলিশের ওপর ঝাপিয়ে পড়ে  এবং পুলিশের দুটি গাড়ি পুড়িয়ে দেয়। একটি গাড়ি প্রায় পুড়িয়ে ফেলে এবং ১৩ জন পুলিশের সদস্য মারাত্মকভাবে আহত হয়ে আজ হাসপাতালে।’

তিনি আরো বলেন, তারা নির্বাচন পেছানোর জন্য পরিকল্পিতভাবে পুলিশের ওপর হামলা করলেন, নিজেদের বীরত্ব দেখালেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আজ দুটি ধারায় বিভক্ত। একটি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বাধীনতা পক্ষের শক্তি। অন্যটি স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি। এরা সাম্প্রদায়িক অপশক্তি হিসেবে কাজ করছে। এদের প্রধান লক্ষ্য দেশকে পাকিস্তানি ধারায় নিয়ে যাওয়া।

এ উসকানি কারা দিলো-প্রশ্ন রেখে এ আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ‘তাহলে কি নির্বাচন পেছানোর জন্য তারা পরিকল্পিতভাবে নয়াপল্টনে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে নিজেদের বীরত্ব জাহির করলো? যে ষড়যন্ত্র নির্বাচন বানচালের সেই ষড়যন্ত্রই কী যেটা আমরা আশা করেছিলাম, সেটাই কী তারা শুরু করে দিলো?’