মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ

১ম ও ২য় শ্রেণির চাকুরীরত ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করেছে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা। আজ বৃহস্পতিবার রাত আটটা থেকে সাড়ে নয়টা পর্যন্ত মহাসড়ক অবরোধ করে তাঁরা। এতে রাস্তার ২ পাশে শত-শত গাড়ি আটকা পড়ে। সাভার থেকে নবীনগর এলাকা পর্যন্ত দীর্ঘ যানযটের সৃষ্টি হয়। ভোগান্তিতে পড়ে হাজারো যাত্রী।

সাভার থানা ওসি এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও তাঁরা রাস্তা থেকে সরতে রাজি হয়নি। পরবর্তীতে আগামীকাল মেডিকেল পরিক্ষার্থী এবং যাত্রী ভোগান্তির কথা চিন্তা করে রাস্তা থেকে অবরোধ তুলে নেন তাঁরা। অবরোধ চলাকালে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক শিহাব উদ্দিন বলেন- ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানিত করতে কোটা চালু করেছেন। মুক্তিযোদ্ধা কোটা বঙ্গবন্ধুর দেয়া উপহার। কোটা পদ্ধতি বাতিলের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর দেয়া সেই উপহারকে অপমানিত করা হয়েছে। তাই এই সিদ্ধান্ত বাতিল করে বঙ্গবন্ধুর দেয়া সম্মান টিকিয়ে রাখার আহ্বান জানাচ্ছি। কোটা সংস্কারের নামে বিএনপি-জামাত দেশে অরাজকতার সৃষ্টি করছে। তাদেরকে চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনতে হবে। এছাড়াও তাদের মধ্যে যারা সরকারি চাকুরীতে কর্মরত তাদের বরখাস্ত করতে হবে।’

মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ

তাঁরা আরো হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করা হলে আগামীতে আরো কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে দাবি আদায় করা হবে এবং মুক্তিযোদ্ধাদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠা করা হবে।

উল্লেখ্য যে, গত ৩ অক্টোবর ১ম ও ২য় শ্রেণির সরকারি চাকুরীতে কোটা বাতিলের সরকারি কমিটির সিদ্ধান্ত অনুমোদন করেছে মন্ত্রী সভা। এতে করে সরকারি চাকুরীতে ৯ম গ্রেড থেকে ১৩তম গ্রেড পর্যন্ত আর কোন কোটা থাকবে না। নিয়োগ হবে মেধার ভিত্তিতে।