হবিগঞ্জ ৩দিনে ১৩টি পেট্রোল ১২টি ককটেল ২০টি চকলেট বোমা উদ্ধার

হবিগঞ্জ  বাহুবল চুনারুঘাট ও লাখাই  পৃথক স্থানে অভিযান চালিয়ে   পরিত্যাক্ত অবস্থায় ১৩টি পেট্রোল ১২টি ককটেল ২০টি চকলেট বোমা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এঘটনায় জেলা জোড়ে পেট্রোল বোমায় নতুন আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ১ টার দিকে বুধবার দিবাগত রাতে বাহুবল মডেল থানার এসআই রহিম ও এসআই অমিত সাহার নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার মিরপুর বাজার এলাকায় টহলরত অবস্থায় ইউনিয়ন পরিষদের পাশে একটি নির্মানাধীন ভবনের সামনে খোলা জায়গায় ৪-৫ জন লোকের জটলা দেখতে পায়। পরে পুলিশ তাদের দিকে এগিয়ে গেলে পুলিশকে লক্ষ্য করে একটি ককটেল ছুড়ে মেরে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে তারা দৌড়ে পালিয়ে যায়। বিকট শব্দে ককটেল বিস্ফোরণে এলাকার লোকজনের মাঝে আতংক দেখা দেয়।

পরে পুলিশ এসে ঘটনাস্থলে বালির স্তুপ থেকে পুলিশ ৬ টি তাজা ককটেল ও ৬ টি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করে। খবর পেয়ে বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)মো. মাসুক আলী, ও শ্রীমঙ্গল র্যাব ৯ এর একদল সদস্য ঘটনাস্থলে আসেন। পরে উদ্ধারকৃত বোমাগুলিকে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মাসুক আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি তবে আমাদের অভিযান অব্যাহত। এদিকে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে লাখাইয়ের বুল্লা বাজার এলাকার রাস্তার পাশ থেকে ২০টি চকলেট বোমা, ২টি পেট্টোল বোমা এবং ১টি বারুদ ভর্তি টিনের বক্স উদ্ধার করেছে পুলিশ।

লাখাই থানার ওসি এমরান হোসেন জানান, গোপন সূত্রে জানা যায়- বুল্লা বাজার এলাকায় বেশ কিছু লোক নাশকতা পরিকল্পনার জন্য গোপন বৈঠক করছে। এ সময় পুলিশ অভিযান চালালে তারা পালিয়ে যায়। পরে ওই এলাকায় ব্যাপক তল্লাশি চালিয়ে বিস্ফোরকগুলো জব্দ করা হয়। এঘটনায় লাখাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল বাশার বাদী হয়ে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদসহ ১২ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন।

এছাড়াও সোমবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে চুনারুঘাট উপজেলার মিরাশি ইউনিয়নের রাখি গ্রামের একটি পরিত্যক্ত ছোট টং দোকান থেকে ৬টি ককটেল ও ৫ টি পেট্রোল বোমা উদ্ধার করে। পরে উদ্ধার ককটেল ও পেট্রোল বোমাগুলো পানিতে ভিজিয়ে নিষক্রিয় করা হয়। এবিষয়ে জানতে চাইলে নবাগত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্লাহ বলেন দূর্বৃত্তরা পুলিশের আইনশৃংঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর জন্য কিংবা জামায়াত বিএনপি নির্বাচনকে সামনে রেখে নাশকতার জন্যও হতে পারে বলে তিনি মনে করেন। তবে এবিষয়ে এখন বলা যাচ্ছে না  তদন্ত চলছে পরে জানানো হবে। এদিকে সাধারণ মানুষ এসব ঘটনায় আতঙ্কে রয়েছেন।

নুর উদ্দিন সুমন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি