দেশে নিরাপদ ও বিশুদ্ধ পানির পরিমাণ তিন শতাংশঃ ড. মোহাম্মদ ইউসুফ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের উচ্চশিক্ষা মানোন্নয়ন গবেষণা প্রকল্পের অধীনে আজ ‘ডেভেলপমেন্ট অব এ কমপ্রিহেনসিভ ইটিপি’ শীর্ষক সমাপনী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকাল দশটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্রে এই প্রশিক্ষণ কর্মশালা উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ইউসুফ আলী মোল্লাহ।

উদ্বোধনী ভাষণে প্রধান অতিথি বলেন, অব্যাহতভাবে মানুষের সংখ্যা ও শিল্প কারখানা বৃদ্ধি পাচ্ছে। শিল্প কারখানা প্রসারের ফলে পানির বহুবিধ ব্যবহার এবং চাহিদা বেড়েছে। এ কারণে নিরাপদ ও বিশুদ্ধ পানির পরিমাণ কমতে কমতে তিন শতাংশে এসে দাঁড়িয়েছে। প্রাণিকুলের বাঁচার জন্য বিশুদ্ধ পানি ধরে রাখতে হবে। ব্যবহৃত পানি শোধনের মাধ্যমে পুন:ব্যবহার করে পানির চাহিদার চাপ কমাতে হবে। সরকার এজন্য সব ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির ভাষণে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেন,“ জনমানুষের কল্যাণমুখী গবেষণায় উৎসাহ দিতে হবে। তিনি বলেন, গবেষণায় নতুন জ্ঞান আবিস্কার মানুষের জীবনকে বদলে দিতে পারে। গবেষণালদ্ধ এই নতুন জ্ঞানের প্রচার বাড়াতে হবে”।

টেকনিক্যাল সেশনে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ড. এ কে এম রাশিদুল আলম। প্রশিক্ষণ কর্মশালায় দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-গবেষকগণ অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির, প্রো-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. মো. নূরুল আলম, প্রো-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. আমির হোসেন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক জোন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী সদস্য ড. এম. এমদাদুল হক, পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. খবির উদ্দিন প্রমুখ।

——–
রুদ্র আজাদ, জাবি প্রতিনিধি