ফরিদপুরে স্কুল ছাত্রীকে ইভটিজিং, এক লক্ষ টাকা জরিমানা

ফরিদপুরের সালথায় ৮ম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে ইভটিজিং করার অপরাধে তিন বখাটের ১ লাখ টাকা জরিমানা করেছে স্থানীয় গ্রাম্য সালিশ। শনিবার (২২ সেপ্টেম্বর) উপজেলার বিভাগদী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সালিশ বৈঠকের সভাপতিত্ব করেন উক্ত বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি কে এম রওশন ফকির।

জানা গেছে, উপজেলার বিভাগদি গ্রামের আনোয়ার মোল্যার ছেলে শাকিল (২১) বিভাগদি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে স্কুলে আসা যাওয়ার পথে প্রায়ই উত্যক্ত করতো। বারবার প্রধান শিক্ষকের নিকট নালিশ করেও কোন সুফল না পেয়ে ঐ ছাত্রী তার বাবার নিকট বলে।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর সকালে ছাত্রীর বাবা উপজেলার মীরকান্দি গ্রামের টুটুল মোল্যা উক্ত বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়। স্কুলের প্রবেশ পথে শাকিলকে দেখতে পেয়ে জিজ্ঞাসা করে তার মেয়েকে কেন বিরক্ত করা হয়। দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শাকিল ও তার বন্ধু বিভাগদি গ্রামের ওয়াহিদ মোল্যার ছেলে ইমরান মোল্যা ও জন মাতুব্বরের ছেলে খাইরুল ও রইচ মিলে টুটুল মোল্যাকে বেধড়ক মারপিট করে।

এব্যাপারে ছাত্রীর বাবা টুটুল বলেন, এলাকার সমাজপতিরা বসে বখাটেদের বিচার করেছে। আমি চাই আমার মেয়েসহ এলাকার সকল মেয়েরা নিরাপদে স্কুলে যাওয়া আসা করতে পারে।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কে এম রওশন ফকির বলেন, মুল ইভটিজিংকারী শাকিলকে ৫০ হাজার ও সহযোগী দুইজনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং এলাকাবাসির নিকট ক্ষমা চেয়ে ভবিষ্যতে এমন অপরাধ করবে না এ প্রতিজ্ঞাবদ্ধ করে।

হারুন-অর-রশীদ, ফরিদপুর প্রতিনিধি