মাধ্যমিক স্কুলে গোপনে তফসীল ঘোষনাসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ

সিরাজদিখানে একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অভিবাবক নির্বাচন নিয়ে অনিয়ম ও পকেট কমিটি করার পায়তারা চলছে। উপজেলার মাস্টার আব্দুর রহমান একাডেমীর অভিবাবক নির্বাচনকে সামনে রেখে কোন প্রকার প্রচার প্রচারণা না করেই গোপনে তফসীল ঘোষনাসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

সরজমিনে জানা যায়, কথিত অভিবাবক নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি গ্রহণে ব্যস্ত নির্বাচন পরিচালনা কমিটি। বিদ্যালয়টিতে প্রতিবার কথিত নির্বাচনের মধ্যামে টাকার বিনিময়ে পকেট কমিটি করে থাকে। নির্বাচনে ৪ জন অভিবাবক সদস্য নির্বাচিত করে থাকে। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও অভিবাবকদের কমিটির নির্বাচনের বিষয় জানতে চাইলে তারা এ বিষয় কিছুই জানেনা বলে জানান। অভিবাবক নির্বাচননের আইনে বলা আছে ভোটার তালিকা তৈরি করা এবং শ্রেণী কক্ষে গিয়ে তালিকা যাচাই করা।

কিন্তু একাধিক ছাত্র ছাত্রীর সাথে কথা বলে জানাযায় শ্রেণী কক্ষে গিয়ে ভোটার তালিকা যাচাই করা হয় নাই। এলাকাতে মাইকিংয়ের মধ্যামে তফসিল ঘোষনা করতে হয়। কোন প্রকার প্রচার প্রচারণা ছাড়াই অতি গোপনীয়তার সাথে তফসীল ঘোষনা করে ৪ জনের মনোনয়ন জমা নেয়া হয়েছে। যাতে করে তাদের মনোনীত অভিবাবক সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হয়। গত ৯ তারিখে মনোনয়ন জমা দেয়া ও ১১ তারিখে যাচাই বাছাই করা গতকাল প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল কিন্তু ১১ তারিখে বিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে মনোনয়ন জমা দেয়ার নোটশ টানানো হয়। নাম না প্রকাশে একাধিক অভিবাবক সদস্য পদে নির্বাচনের আগ্রহী জানান, আমরা জানিনা কখন তফসীল ঘোষনা করেছে। যখন জানতে পারলাম মনোনয়ন জমা দেয়ার তারিখ শেষ। বিদ্যালয়ে দুর্নীতি করার জন্য এ পায়তারা চলছে। অভিবাবকরা জানান নির্বাচনে বিষয় তেমন কিছুই জানে না।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিবেন্দ্র চন্দ্র চক্রবর্তী রাতে আমার সংবাদকে বলেন, সকল নিয়ম মেনই নির্বাচনের তফসীল ঘোষনা, যাচাই বাছাই সম্পূর্নœ হয়েছে। ৪জন অভিবাবক সদস্য মনোনয়ন জমা দিয়েছে। কোন রকম অনিয়ম হয়নি।

মধ্যাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান হাজী আব্দুল করিম শেখ দুঃখ করে রবিবার রাতে আমার সংবাদকে বলেন, আমি এমন একজন দুর্বাগা চেয়ারম্যান আমি কিছুই জানিনা। ঐদিন কিছু অভিবাবক আমাকে ফোন দিয়ে ছিল,অনেক সাংবাদিক দিয়েছে এ বিষয়ে আমার জানা নাই। আসলে এ বিষয় আমাকে কেউ জানা নাই। কিভাবে যে কমিটি হয়। কিভাবে যে কে কি করে আমি জানিনা। দীর্ঘটিন ধরে নির্বাচন হয় না। অভিবাবকরা নির্বাচন অনেকে চায়। নির্বাচন না করার জন্য একটা মহল সব সময় চায় ক্ষমতায় থাক, নির্বাচন না হোক।

উপজেলা মধ্যমিক শিক্ষা অফিসার কাজী ওহেদুর রহমান রবিবার সন্ধ্যায় আমার সংবাদকে বলেন, নির্বাচন বিধি মোতাবেক সকল কাগজপত্র সঠিক আছে।

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি