যাত্রীদের ব্যাগ বুঝিয়ে দিতে না পারায় সালাম এয়ারলাইনসকে ১২ লাখ টাকা জরিমানা

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যাত্রীদের ব্যাগ বুঝিয়ে দিতে না পারার দায়ে সালাম এয়ারলাইনসকে ১২ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত বুধবার যাত্রীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ওমানের এই এয়ারলাইনসটিকে জরিমানা করা হয়। বিমানবন্দরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ ইউসুফ এ জরিমানা করেন। একই সঙ্গে দ্রুততর সময়ে যাত্রীদের ব্যাগ ফেরত দিতেও বিমান কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেন।

ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইউসুফ বলেন, গত ২৯ আগস্ট থেকে ঢাকায় অপারেশন শুরু করে সালাম এয়ার। প্রথম ফ্লাইটেই এয়ারটি প্রায় ৪০ জন যাত্রীর ব্যাগ/লাগেজ ওমানে রেখে আসে। পরদিন ৩০ আগস্ট দ্বিতীয় ফ্লাইটে ৩৫ জন যাত্রীর লাগেজ রেখে আসে তারা। ১ সেপ্টেম্বর তৃতীয় ফ্লাইটেও প্রায় ৩০ জনের ব্যাগ থেকে যায়। এই তিন ফ্লাইটের ১০৫ যাত্রীর অধিকাংশই ছিলেন হাজি, যারা জেদ্দা থেকে সালাম এয়ারে মাসকাট হয়ে ঢাকায় আসেন। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার তাদের ওভি-২৮৩ নম্বর স্পেশাল ফ্লাইটে ৬১ জন যাত্রীর ১০৮ টি লাগেজ ফেলে আসে ফ্লাইটটি।

বিমানবন্দর সূত্র জানায়, সর্বশেষ গত বুধবার ওভি-২৮৩ ফ্লাইটে ৬১ জন যাত্রীর ১০৮টি ব্যাগ পাওয়া যায়নি। পরে যাত্রীরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানালে সালাম এয়ারকে যাত্রীপ্রতি ২০ হাজার টাকা করে ১২ লাখ ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে যুক্তিপূর্ণ কারণ ছাড়া ব্যাগ পাওয়া না গেলে যাত্রীপ্রতি জরিমানা দুই লাখ টাকায় দাঁড়াবে বলেও সতর্ক করে দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বর্তমানে ঢাকা-মাস্কট রুটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস, রিজেন্ট এয়ারওয়েজ, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস ও সালাম এয়ার যাত্রী পরিবহন করছে। এই রুটে ন্যারোবোডি বিমান ব্যবহার করছে সালাম এয়ার। এ কারণে বিমানটি যাত্রীদের ৪০ কেজি ব্যাগেজ অ্যালাউন্স দিলেও সক্ষমতা না থাকায় তাঁরা ব্যাগ আনতে পারছেন না বলে বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে।