জাবি’তে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে গণঅনশন

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে দু ঘণ্টা গণঅনশন কর্মসূচি পালন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতীয়তাবাদী শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী ফোরাম। আজ বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও মানবিকী অনুষদের সামনের মহুয়া তলায় বেলা ১১টায় এ কর্মসূচি শুরু হয়।

এ সময় কেন্দ্রীয় কারাগারের অভ্যন্তরে খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় বিচারে সংবিধান বিরোধী আদালত স্থাপন ও দ্রুত উন্নত চিকিৎসার দাবিও জানান তারা। পরে বেলা ১টার দিকে তারা এ অনশন ভাঙেন।

এ সময় বক্তারা বলেন, বেগম খালেদা জিয়া রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়ে ন্যায় বিচার পাচ্ছেন না। সরকার বিচার বিভাগ কে প্রভাবিত করছে। তিন তিনবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে সুচিকিৎসা পাচ্ছে না। যা মানবাধিকারের চূড়ান্ত লঙ্ঘন।

অধ্যাপক শামসুল আলম সেলিমের সঞ্চালনায় গণঅনশনে জাতীয়তাবদী ফোরামের আহ্বায়ক অধ্যাপক সৈয়দ কামরুল আহসান টিটো বলেন, অসুস্থ মানুষকে নেয়ার কথা হাসপাতালে অথচ নেয়া হলো করাগারে স্থাপিত আদালতে। সরকার খালেদা জিয়াসহ জাতীয়তাবাদী শক্তিকে যেভাবে প্রতিহত করছে এবং মানুষের মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে তার জবাব এদেশের জনগন আগামী নির্বাচনে দিবে।

দর্শন বিভাগের অধ্যাপক মো. কামরুল আহসান বলেন, ‘শেখ হাসিনা সুযোগ পেলেই শহীদ জিয়ার সমালোচনা করে অথচ তিনি এখন ‘জিয়ার আমলে’ কারাগারে কর্ণেল তাহেরের বিচারকে উদাহরণ হিসেবে গ্রহন করছেন। তিনবারের প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কারাগারে আদালত বসানো সংবিধান পরিপন্থি।’ এছাড়াও তিনি সারাদেশে দমন নিপীড়নের রাজনীতি ও ইভিএম পদ্ধতির সমালোচনা করেন।

বেলা একটার দিকে দর্শনবিভাগের অধ্যাপক কামরুল আহসান জাতীয়তাবাদী শিক্ষক ফোরামের আহ্বায়ক অধ্যাপক সৈয়দ কামরুল আহসান টিটো’কে তরল পানীয় পান করিয়ে কর্মসূচি শেষ করেন।

কর্মসূটিতে অধ্যাপক শরিফ উদ্দিন, অধ্যাপক ড. মোস্তফা নাজমুল মানছুর, অধ্যাপক মুহাম্মদ তারেক চৌধুরী, অধ্যাপক মাফরুহী সাত্তার, অধ্যাপক জামাল উদ্দিন রুনু সহ শতাধিক শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

রুদ্র আজাদ, জাবি প্রতিনিধি