সিরাজদিখানে ছাত্রী অপহরণের চেষ্টা আটক ১

সিরাজদিখানের কুচিয়ামোড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী আরমিন (১৪) অপহরণ করে হত্যা চেষ্টাকারি মনিরুল গাজী (২৮) নামের এক ব্যাক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে উপজেলার বাসাইল থেকে তাকে আটক করা হয়।

মনিরুল সাতক্ষিরা জেলার তালাত থানার মোতালি গ্রামের আব্দুস সাত্তার গাজীর ছেলে। সে দুই বছর যাবত সিরাজদিখানে বসবাস করছে। দুইমাস ধরে কুচিয়ামোড়া গ্রামের আবুল বেপারীর বাড়িতে ভাড়া থাকে।

উপজেলার বাসআইল ইউনিয়নের ঘোড়ামারা গ্রামের জাহাঙ্গির মৃধা (ছাত্রীর বাবা) জানান গত ৫ সেপ্টেম্বর তার মেয়ে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার পথে মনিরুল গলাচেপে ধরে টেনে নেওয়ার চেষ্টা করে। আরমিনের চিৎকারে আসপাশের লোকজন টের পেয়ে এগিয়ে আসলে অপহরণ চেষ্টাকারি পালিয়ে যায়। রোববার বিকালে ঐ ছাত্রী অপহরণ কারিকে দেখে বাসায় গিয়ে জানালে স্বজন ও এলাকার লোকজন অপহরণ চেষ্টাকারিকে আটকে মারধর করে। এরপর সোমবার দুপুরে পুলিশের হাতে তুলেদেয়। সে আরো জানায় তার বোন আছিয়ার সাথে পূর্বশত্রুতা রয়েছে। আদালতে তাদের মামলা আছে।

অপহরণ চেষ্টাকারি মনিরুল জানায় ছাত্রীর ফুপু আছিয়া ঐ ছাত্রীকে মারার জন্য বলেছে। তাই সে টাকার জন্য ছাত্রীর গলাটিপে ভয় দেখিয়েছে মারার জন্য না। সে ইট ভাটার শ্রমিক বলে জানায়।

সিরাজদিখান থানার অফিসার ওসি (প্রশাসন) ফরিদ উদ্দিন জানান, পারিবারিক শত্রুতার জেড়ে মারার জন্য বা ভয়ভীতি দেখানোর জন্য এক পক্ষ একাজ করিয়েছে। অভিযোগ পেয়েছি মামলা হবে। একজন আটক আছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

 

আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি