শহিদুলের জামিন আবেদন নিষ্পত্তি করার জন্য বিচারিক আদালতকে নির্দেশ

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে ‘উস্কানিমূলক মিথ্যা’ প্রচারের অভিযোগে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় গত ৬ আগস্ট শহিদুল আলমকে সাত দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আলোকচিত্রী ড. শহিদুল আলমের জামিন আবেদন একদিনের মধ্যে নিষ্পত্তি করার জন্য বিচারিক আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

সোমবার তার জামিন সংক্রান্ত বিষয়ে শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

এর আগে গত ৪ সেপ্টেম্বর তার জামিন শুনানিতে বিব্রতবোধ করেছিলেন হাইকোর্টের বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি খোন্দকার দিলুরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ করেন। আজ প্রধান বিচারপতি নির্ধারিত বেঞ্চে শহীদুল আলমের জামিন শুনানি করার পর এই আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে ধানমন্ডি এলাকায় ছবি তোলার সময় শহিদুলের ওপর হামলা চালিয়ে ক্যামেরা ভেঙে ফেলা হয়েছিল। এ বিষয়ে কথা বলতে বেশ কয়েকবার ফেসবুক লাইভে এসেছিলেন তিনি৷ অভিযোগ করে বলেছিলেন, সিটি কলেজের পাশে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা তার ওপর হামলা চালায়।

ছাত্র আন্দোলন নিয়ে আল জাজিরাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সরকারের ভূমিকার সমালোচনা করেন শহিদুল৷ সাক্ষাৎকারটি প্রচারিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পরই ৫ আগস্ট রাতে তাকে তার ধানমন্ডির বাসা থেকে আটক করে নিয়ে যায় সাদা পোশাকে গোয়েন্দা পুলিশ৷ পরদিন বিতর্কিত তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারার মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে নেওয়া হলে তাকে সাত দিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়।