বান্দরবানে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পিটালেন তরুনলীগ নেতা

বান্দরবানে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পিটালেন তরুনলীগ নেতা। মঙ্গলবার বিকালে ক্যাচিংঘাটা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

বান্দরবান জেলা তরুন লীগের আহবায়ক ডা. প্রিন্স সেন যৌতুকের জন্য কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রী রুপা দাশ কে হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে। চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে রুপার স্বামী পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশীরা রুপার পিত্রালয়ে খবর দিলে তার ভাইয়েরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

জানা যায়, ঘটনার পর প্রিন্স নিজে থানায় যায়, কিন্তু রুপার পরিবারের লোকজনকে থানায় ঢুকতে দেখে গেইট থেকে মটর সাইকেল রেখে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ তার মটর সাইকেলটি জব্দ করে। এ ঘটনায় রুপা বাদী হয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা দায়ের করে। তবে ঘটনার পর থেকে স্বামী পলাতক রয়েছে।

আহত রুপা দাশের ভাই রাজেশ দাশ বলেন, প্রিন্স আমার বোনকে হাতুড়ি দিয়ে মারধর করেছে। বর্তমানে আমার বোনকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছি, ডাক্তার বলছে অবস্থা ভাল না চট্টগ্রাম নিতে যেতে হতে পারে। সে আমার বোনকে যৌতুকের জন্য এর আগেও অনেকবার মেরেছে। এমনকি আগুনে পুড়িয়ে মারতেও চেয়েছিল। তখনও তার বিরুদ্ধে মামলা করেছিলাম। সে মামলায় নয় মাস জেলও খেটেছিল। পরে সে আবার ক্ষমা চেয়ে আমার বোনকে নিয়ে গেছে আমরা ভেবেছিলাম সে ভাল হয়ে গেছে তাই কিছু বলিনি। কিন্তু এবার সে আবার হত্যার উদ্দেশ্যে আমার বোনের উপর হামলা করেছে। রুপার পরিবার আরো জানায় বিয়ের পর থেকে দীর্ঘ আট বছর ধরে সে যৌতুকের জন্য রুপার উপর অত্যাচার নির্যাতন চালিয়ে আসছে। তার একটি ছোট বাচ্চা আছে তার দিকে তাকিয়ে আমরা সব সহ্য করে আসছি। কিন্তু এবার সে হত্যার উদ্দেশ্যে তার উপর হামলা করেছে। আমরা এ ধরনের নরপশুর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। এ বিষয়ে তরুন লীগের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসিন করিম জানান তাকে পার্টির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে কিন্তু এটা তার পারিবারিক বিষয় তবে যে পরিবারের সাথে ভাল আচরন করতে পারে না, সে পার্টির মানুষের কাছেও নিরাপদ না, তার বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযোগ পাওয়া গেলে কেন্দ্র তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিবে। কারন এ ধরনের কাজকে কেউই সাপোর্ট করে না। আমরাও করব না।

বান্দরবান সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইয়াছির আরাফাত বলেন যৌতুকের জন্য স্বামী স্ত্রীকে নির্যাতন করেছে অভিযোগ গ্রহন করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে যৌতুক আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে। আসামীকে খুব শীঘ্রই গ্রেপ্তার করা হবে।

 
সোহেল কান্তি নাথ, বান্দরবান প্রতিনিধি