রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে মিয়ানমার আদালত

রাষ্ট্রীয় গোপন তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার দায়ে মিয়ানমারে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের দুই সাংবাদিককে সাত বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ সোমবার ইয়াঙ্গুনের উত্তরাঞ্চীয় জেলা জজ আদালতের বিচারক ইয়ে লুইন এ রায় ঘোষণা করেন। 

ওয়া লোন এবং কিয়াও সোয়ে ও নামের ওই দুই সাংবাদিক গতবছর পুলিশের কাছ থেকে নথি পাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে গ্রেফতার হন। তারা দু’জনই মিয়ানমারের নাগরিক।

বিচারক ইয়ে লুইন বলেন, যেহেতু তাঁরা অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টস (দাপ্তরিক গোপনীয়তা আইন) ভঙ্গ করেছেন, তাই তাঁদের প্রত্যেককে সাত বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হলো। গ্রেপ্তারের সময় থেকে সাজার এ মেয়াদ কার্যকর হবে।

ইয়াংগুন শহরের উপকণ্ঠে পুলিশের নিমন্ত্রণে রাতের খাবার আয়োজন করে তাদের ডেকে নেয়া হয়। এরপর তাদের আটক করা হয়। মিয়ানমারে গোপনীয়তা লঙ্ঘনের শাস্তি সর্বোচ্চ ১৪ বছরের কারাদণ্ড। এরপর তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হলে বিষয়টা মিয়ানমারের গণমাধ্যমকর্মীদের স্বাধীনতা নিয়ে প্রশ্ন তোলে। শুরু থেকেই এ দুই সাংবাদিক বলে আসছেন তাদের ফাঁদে ফেলা হয়েছে।

রায়ের পর প্রতিক্রিয়ায় রয়টার্সের এডিটর-ইন-চিফ স্টিফেন জে অ্যাডলার বলেন, মিয়ানমার, রয়টার্সের সাংবাদিক ওয়ালোন ও কিয়াউ সোয়ে এবং যেকোনো স্থানের সংবাদমাধ্যমের জন্য এটা দুঃখের দিন।

মিয়ানমারে রোহিঙ্গা সঙ্কট শুরু হওয়ার প্রায় এক বছর পর এ রায় এলো। রাখাইনে গণমাধ্যমের কার্যক্রম কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করে সরকার। এ কারণে ওই অঞ্চল থেকে নির্ভরযোগ্য তথ্য পাওয়া কষ্টসাধ্য।