ঢাবির নবনির্মিত ‘৭ মার্চ ভবন’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) রোকেয়া হলে নবনির্মিত ‘৭ মার্চ ভবন’ উদ্বোধন করেন। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে সচিবালয় থেকে রোকেয়া হল পর্যন্ত দীর্ঘ আলপনা করেছে ঢাবির সম্মিলিত শিক্ষার্থী সংসদ। 

এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান, উপউপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুসহ ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানীসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

রোকেয়া হলের ‘৭ মার্চ ভবন’ ১১ তলাবিশিষ্ট। এ ভবনে প্রায় এক হাজার ছাত্রী আবাসন সুবিধা পাবেন।

নতুন এ হল উদ্বোধনের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী তরুণ শিক্ষকদের আবাসনের জন্য নির্মিত শহীদ আবুল খায়ের ভবন, এমবিএ ভবন (ইস্টার্ন উইং), চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের জন্য বঙ্গবন্ধু টাওয়ার ও জ্যেষ্ঠ শিক্ষকদের জন্য নির্মিত আবাসিক ভবনের ফলক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আঁকা হয়েছে ১৯৭১ ফুট দৈর্ঘ্য এবং ৭ ফুট প্রস্থের আলপনা। মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের দিকটি বিবেচনায় নিয়ে এ আলপনা আঁকা হয়। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুপুর ২টা পর্যন্ত ঢাবি ক্যাম্পাসে অবস্থান করতে পারেন।

এ সময় আইনশৃংখলা বাহিনীর গৃহীত নিরাপত্তা পদক্ষেপের কারণে জনসাধারণের স্বাভাবিক চলাচল বিঘ্নিত হতে পারে।

এ সময় সংশ্লিষ্ট সবাইকে বিকল্প পথ ব্যবহারের অনুরোধ জানিয়ে সাময়িক অসুবিধার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।