কালীগঞ্জে নিজের শরীরে ইনজেকশন পুশ করতে গিয়ে নার্সের মৃত্যু!

যে রুমে বসে শত শত রোগীকে ইনজেকশন দিয়েছেন। যে রুমে বসে রোগীদের সেবা দিতেন সেই রুমেই নিজ শরীরে ইনজেকশন দিতে গিয়ে মারা গেলেন চন্দনা রানী শর্মা (৫০) নামের এক সিনিয়র নার্স (সেবিকা)।

মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দায়িত্বরত অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত চন্দনা রানী হৃদরোগে ভুগছিলেন। সে কালীগঞ্জ পৌর শহরের নিশ্চিন্তপুরের রতন বিশ্বাসের স্ত্রী।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা হুসাইন সাফায়েত জানান, চন্দনা রানী বেশ কিছুদিন ধরে হৃদ রোগে ভুগছিলেন। প্রতিদিনের মতো সে হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করছিলেন। সকাল ৯টার দিকে অন্য কারো সহযোগীদের সাহায্য ছাড়াই নিজের শরীরে ইনজেকশন পুশ করতে যায়। ইনজেকশন পুশ করতে করতেই সে মারা যায়।

তিনি আরো জানান, হার্টের এই ইনজেকশন অবশ্যই অন্য কারোর সহযোগীতা নিয়েই দিতে হয়।

কারন এই জাতীয় ইনজেকশন দেওয়ার সময় শরীরে জটিলতা দেখা দিতে পারে। কিন্তু চন্দনা রানী একজন সিনিয়র নার্স হয়েও সেটা করেনি। মৃত চন্দনা রানীর মেয়ে সঙ্গীতা জানান, তার মা হৃদরোগে অসুস্থ ছিলো।

 

জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি