শহিদুল আলমকে চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট

দৃক গ্যালারির প্রতিষ্ঠাতা আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন আলোকচিত্রী শহিদুল আলমকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় রিমান্ডের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ও তাকে চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। শহিদুল আলমকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ)-এ চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। 

মঙ্গলবার বিচারপতি সৈয়দ মো. দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি ইকবাল কবীরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এ আবেদন করেন শহিদুল আলমের আইনজীবী অ্যাডভোকেট তানিম হোসেন শাওন। বিকেলে এর শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। আদালতে রিটটি করেন শহিদুল আলমের স্ত্রী অধ্যাপক ড. রেহনুমা আহমেদ।

গতকাল সোমবার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় শহিদুল আলমের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মো: আসাদুজ্জামান নূর রিমান্ডের আদেশ দেন।

‘মিথ্যা তথ্য দিয়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট’ করার অভিযোগে রোববার রাতে শহিদুল আলমকে তার ধানমন্ডির বাসা থেকে আটক করে ডিবি পুলিশের একটি দল। পরে রমনা থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে দায়ের করা একটি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে তুলে রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আদলত তার ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের ছাত্র বিক্ষোভ নিয়ে সম্প্রতি একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন শহিদুল আলম।