আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বোঝাতে ছাত্রলীগের ওপর দায়িত্ব দিলেন প্রধানমন্ত্রী!

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভরত কোমলমতি শিক্ষার্থীদের বোঝাতে অবশেষে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দায়িত্ব দিয়েছেন ছাত্রলীগকে। আজ বেলা দুইটায় গণভবনে ছাত্রলীগ নেতাদের সাথে সাক্ষাৎকালে প্রধানমন্ত্রী এই দায়িত্ব দেন।

গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আজ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের নেতারা সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে যান। তখন প্রধানমন্ত্রী নিরাপদ সড়ক ও দুই শিক্ষার্থীকে বাসচাপায় হত্যার বিচারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের বোঝাতে উপস্থিত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের দায়িত্ব দেন।

উপস্থিত একাধিক নেতা জানিয়েছেন যে, তাদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘গত ২৯ জুলাইয়ের ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক ও মর্মান্তিক। কোমলমতি শিশুরা কয়েকদিন ধরে রাস্তায় অবস্থান করছে, তাদের মতো আমরাও ব্যথিত। যারা এটি ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ড্রাইভার ও হেলপারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আইন অনুযায়ী যাতে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা যায় এ জন্য তদন্ত চলছে। শাস্তি হবেই। কিন্তু যেসব কোমলমতি শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছে, তারা যেন কারো প্ররোচণায় না পড়ে। তাদেরকে বোঝাতে হবে। এ দায়িত্ব ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্বকে নিতে হবে।’

তিনি আরও বলেন- ‘সামনে নির্বাচন, এই নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করতে হবে। ছাত্রলীগের দায়িত্ব সরকারের উন্নয়নগুলো জনগণের ঘরে ঘরে পৌঁছানো। তোমাদের কথা মানুষ শুনবে এবং বিশ্বাস করবে।’

এসময় গণভবনে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সদ্য বিদায়ী ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন উপস্থিত ছিলেন।