ফিটনেস ও লাইসেন্স না থাকায় পুলিশের গাড়ি আটক করে শিক্ষার্থীরা

রাজধানীর বিমান বন্দর সড়কের কুর্মিটোলা এলাকায় জাবালে নূর বাসের চাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় নৌমন্ত্রীর পদত্যাগ, নিরাপদ সড়ক ও ঘাতক চালকদের দ্রুত বিচার ও ফাঁসির দাবিতে আজ তৃতীয় দিনের মত অবরোধ করেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। রাস্তার মধ্যে পুলিশের গাড়ি আটকেও ফিটনেস ও লাইসেন্স চেক করেছে শিক্ষার্থীরা।

এয়ারপোর্ট মোড়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশ এসে বাধা দিতেই ওরা উল্টো পুলিশের বাসের ফিটনেস, ড্রাইভারের লাইসেন্স দেখতে চায়। পুলিশ, অপুলিশ সব চালকের কাছেই লাইসেন্স থাকার আইন থাকলেও পুলিশের কোন একটা গাড়ীতেও কোন একটা চালকের কাছেও লাইসেন্স পাইনি ওরা। ওরা অমোচনীয় কলম দিয়ে গাড়ীর পুলিশ লোগো কেটে দেয় এবং সারা গায়ে পোষ্টার লাগিয়ে পুলিশের বাসকে বাধ্য করে সেই অবস্থায় ফেরত যেতে।

এদিকে রাস্তা বন্ধ থাকায় কর্মস্থল ও বিভিন্ন গন্তব্যে যেতে ভোগান্তিতে পড়ে বিশাল এলাকার মানুষ। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছাত্রদের বুঝিয়ে সড়ক খুলে দেয়ার জন্য কয়েক দফা চেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হন। বিপুল সংখ্যক মানুষকে হেঁটে গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে।