বাহুবলে পুলিশের মোটরসাইকেলে যোগে ইয়াবা পাচার এএসআই ক্লোজড

হবিগঞ্জের বাহুবলে পুলিশের মোটরসাইকেল দিয়ে ইয়াবাসহ পাচারের অভিযোগে এএসআই কবিরকে ক্লোজড করা হয়েছে। বুধবার (১১ জুলাই) সকালে তাকে বাহুবল থানা থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: মাসুক আলী এএসআই ক্লোজড হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান মঙ্গলবার রাতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ তাকে ক্লোজড করার আদেশ প্রদান করেন।

(১০ জুলাই) বাহুবল থানার এসআই কবীরের মোটরসাইকেল ইয়াবা পাচারের সময় সালাউদ্দিন (২২) নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে জনতা আটক করে। সে শ্রীমঙ্গল থানার সুরমাভ্যালী এলাকার কনা মিয়ার ছেলে। সে দুই বছর যাবৎ বাহুবল উপজেলার সাতপাড়িয়া গ্রামের তাহির মিয়ার ডেনিং ওয়ার্কসপে কাজ করছিল। ওয়ার্কসপে কাজের সুবাদে পুলিশের সাথে হাত মিলিয়ে মাদক ব্যবসা করে আসছিল।

জানা যায়, বাহুবল থানা পুলিশের এএসআই কবীরের থানা থেকে ইস্যুকৃত ব্যবহৃত মোটরসাইকেল নিয়ে উপজেলার পশ্চিম জয়পুর গ্রামে ইয়াবা বিক্রয় করতে আসে সালাউদ্দিন তখন গ্রামবাসীর সন্দেহ হলে উপস্থিত জনতা তাকে হাতে নাতে আটক করে। পরে তার দেহতল্লাশী করে ৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

এ সময় সালাউদ্দিন জানায়, অনেক দিন যাবৎ এএসআই কবীরে সাথে মাদক ব্যবসার লেনদেন করে আসছিল। সেদিনও কবীর তাকে পশ্চিম জয়পুর গ্রামের ইয়াবা ব্যবসায়ীর কাছে ইয়াবা দিতে ও টাকা আনতে পাঠায়। ইয়াবা দিয়ে আসার পথে তাকে আটক করে উপস্থিত জনতা। খবর পেয়ে থানার এসআই অমৃত ও এএসআই সেলিম ঘটনাস্থলে পৌছে মোটরসাইকেল সহ তাকে থানায় নিয়ে আসে।

বাহুবল মডেল থানার ওসি মাসুক আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আটককৃত বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে এএসআই এর বরাদ্ধকৃত সরকারী মোটরসাইকেল মাদক পাচার কাজে ব্যবহারের সত্যতা পাওয়া গেলে তাকে ক্লোজ করা হয়।

নুর উদ্দিন সুমন, হবিগঞ্জ প্রতিনিধি