শ্যামনগরে র‌্যাবের হাতে অস্ত্র সহ বনদস্যু আটক

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় অস্ত্রসহ কিশোর শীল (৩৮) নামে এক ডাকাতকে আটক করেছে র‌্যাব-৬এর সদস্যরা। আটক বনদস্যু বাগেরহাট জেলার মংলা থানার দিঘরাজ গ্রামের কৃষ্ণপদ শীলের ছেলে।

উপজেলার বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়নের কলবাড়ি গ্রাম থেকে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে তাকে আটক করা হয়। এ সময়ে তার কাছ থেকে ১টি পাইপ গান ও ৫ রাউন্ড তাজা কার্তুজ জব্দ করা হয়।

র‌্যাব-৬ এর উপ-পরিচালক (ডিএডি) জয়নাল আবেদীন জানান, ডাকাতির উদ্দেশ্যে সুন্দরবনে প্রবেশের খবর গোপনে জানতে পেরে র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র গুলিসহ তাকে আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে সুন্দরবনে বনদস্যুতার কথা স্বীকার করেছে কিশোর শীল। অস্ত্রসহ তাকে শ্যামনগর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

শ্যামনগর থানার ওসি সৈয়দ মান্নান আলী বলেন, অস্ত্র আইনে তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাকালে কিশোর শীল জানায়, প্রথম পর্যায়ে সে রামপাল এলাকায় শহিদুল বাহিনীর সক্রিয় সদস্য ছিল। সেখানে ৬ বছর যাবৎ সুন্দরবনে বনদস্যুতার সাথে জড়িত ছিল। শহিদুলের মৃত্যুর পর দল ত্যাগ করে বনদস্যু ন’ভাই বাহিনীতে যোগ দেয়। পরবর্তীতে ন’ভাই বাহিনী র‌্যাবের হাতে আত্মসর্মপনের পরে দল ত্যাগ করে। মুন্সিগঞ্জ এলাকায় বনদস্যুর এক বাহিনীর প্রধান তাকে সুন্দরবনে বনদস্যুতার জন্য নিয়ে এসেছে। তার দুই ছেলে মেয়েসহ স্ত্রী বর্তমানে ভারতে নদিয়া জেলায় বসবাস করছে বলে জানায়।

রনজিৎ বর্মন, শ্যামনগর (সাতক্ষীরা )প্রতিনিধি