বাংলাদেশের সমুদ্রসীমার বিকাশের ক্ষেত্রে সহযোগি করবে নরওয়ে

বাংলাদেশ ও নরওয়ে বাংলাদেশের সমুদ্রসীমার বিকাশের ক্ষেত্রে ব্যাপকভাবে সহযোগিতার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আজ শুক্রবার নরওয়ের রাজধানী ওসলোতে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হকের সাথে এক বৈঠকে নরওয়ের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল ওয়েগার স্ট্রোমেন এসব কথা বলেন।

মেজর জেনারেল ওয়েগার স্ট্রোমেনের আমন্ত্রণে ২৮ জুন দুই দেশের মধ্যকার রাজনৈতিক আলোচনা সমঝোতার জন্য বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব মো. শহিদুল হক দেশটিতে সফর করছেন।

বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল অন্যদের মধ্যে, নরওয়েতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোঃ নাজমুল ইসলাম এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক (পশ্চিম ইউরোপ ও ইইউ) মোহাম্মদ খোরশেদ এ খাস্তা উপস্থিত ছিলেন। রোহিঙ্গা সংকট নির্সনেও তারা কথা বলেন।

তিনি মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের প্রতি সুরক্ষার প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন। মেজর জেনারেল ওয়েগার স্ট্রোমেন বলেন, মৌলিক মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, তাদের নাগরিকত্ব বিষয়ক একটি দীর্ঘস্থায়ী সমাধান এবং মিয়ানমারের বাড়িগুলিতে ফিরে যাওয়ার অধিকার।

তিনি জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব কফি আনান কমিশনের সুপারিশের দ্রুত ও পূর্ণ বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক এই নিপীড়িত মানুষের জন্য নরওয়ের রাজনৈতিক ও মানবিক সমর্থন স্বীকার করেন।

তিনি এই দীর্ঘস্থায়ী সংকটের একটি টেকসই সমাধানের জন্য মিয়ানমারের উপর ক্রমবর্ধমান এবং তীব্র আন্তর্জাতিক চাপের প্রয়োজনের উপর জোর দেন।

সচিব বলেন, রোহিঙ্গারা যাতে রাখাইন রাজ্যে তাদের পূর্বপুরুষের বাড়িতে ফিরে যেতে পারে সে বিষয়ে আন্তর্জাতিক মহলকে আরো কার্যকরি উদ্যোগ নিতে হবে।

আলোচনায় উভয় পক্ষ পারস্পরিক স্বার্থে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। বিশেষ করে সামুদ্রিক সেক্টর, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, আঞ্চলিক সংযোগ/অর্থনৈতিক উদ্যোগ, বিশ্বায়নের সার্বিক কম্প্যাক্ট, ব্রেক্সিট। তারা সমসাময়িক ভূতাত্ত্বিক বিষয়গুলির উদ্ভবের বিষয়েবো মতবিনিময় করেন।