ঝিনাইদহে তিন এসএসসি পরীক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাদপুকুরিয়া গ্রামে ত্রীমোজ তিন সহোদর এসএসসি পরীক্ষার্থী মানিক, রতন ও হিরাকে কুপিয়ে আহত করা মামলার আসামীরা গ্রেফতার না হওয়ায় তারা অনবরত মামলার বাদীকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

আসামী সাবেক চরমপন্থি ক্যাডার বিল্লাল হোসেন, নুর আলী, আজাদ, সোহেল, বদর উদ্দীন ও আবুল কালাম প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তারা মামলা তুলে নিতে হুমকী দিচ্ছে। মামলার বাদী বাদপুকুরিয়া গ্রামের রজব আলী জানান, গত ৯ জুন রাতে নারী ঘটিত বিষয়কে কেন্দ্র করে তার এসএসসি পরীক্ষার্থী তিন ছেলেসহ ৮ জনকে কুপিয়ে আহত করে বিল্লাল হোসেন ও তার লোকজন। বিল্লাল এক সময় চরমপন্থি সংগঠন পুরর্ববাংলা ও সর্বহারা দলের সদস্য ছিল। একাধিক হত্যা মামলার আসামী। তার ভয়ে সব তটস্থ থাকে। সেই সুবাদে সে বাদপুকুরিয়া গ্রামের স্বামী পরিত্যক্তা এক মহিলার সাথে অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে ধারালো অস্ত্র দিয়ে বাদপুকুরিয়া গ্রামের আব্দুল কাদের ব্যাপারী, ইলা বেগম, মানিক হেসেন, মানিক, হিরা, রতন আলী, তছুরা বেগম ও মনিরুল ইসলামকে আহত করে। তিনি আরো জানান, তার এসএসসি পরীক্ষার্থী তিন জোমজ সন্তান হিরা, মানিক ও রতনের মাথায় কুপিয়ে জখম করা হয়। তারা এখনো পুরোপুরি সুস্থ হয়নি। মাথায় এখনো ক্ষতর চিহ্ন নিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে। আসামীদের ক্রমাগত হুমকীর কারণে পরীক্ষা সামনে হলেও ঠিকমতো পড়তে পারছে না বলে রজব আলী অভিযোগ করেন।

বিষয়টি নিয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই পিন্টু দাস জানান, আসামীদের গ্রেফতারে সোর্স লাগানো আছে। তিন দিন অভিযানও চালানো হয়েছে। তিনি অভিযোগ করেন আসামী গ্রেফতারে বাদী কোন সহায়তাই করছেন না। তারপরও তিনি আসামীদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন।

 

জাহিদুর রহমান তারেক, ঝিনাইদহ প্রতিনিধি