রাজাপুরের গৃহবধূ সীমা হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেপ্তার

ঝালকাঠির রাজাপুরে গৃহবধূ সীমা হত্যা মামলার পলাতক আসামী মো. সবুজ খন্দকারকে (৪৯) বাগেরহাটে থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শনিবার বিকেলে রাজাপুর থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাগেরহাট সদর থানা পুলিশের সহায়তায় নতুন বাসস্টান্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

শনিবার রাতেই তাকে রাজাপুর থানায় নিয়ে আসা হয়। পুলিশ সূত্রে জানাযায়, মামলার এক বছর পরে এজাহারের দুই নম্বর আসামী সবুজ খন্দকারকে গ্রেপ্তার করা হলো। গৃহবধূ সীমা হত্যার পরেই এ মামলার প্রধান আসামী সীমার স্বামী মিজান খন্দকারকে বিদেশে যাওয়ার পথে ঢাকা থেকে প্রেপ্তার করা হয়। মামলার এজাহারভুক্ত চারজন আসামীর মধ্যে এ নিয়ে দুইজন আসামী গ্রেপ্তার হলো। অপর দুই আসামী পালাতক রয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃত মিজান খন্দকার ও সবুজ খন্দকার আপন ভাই। তাদের বাড়ি উপজেলার বাঘড়ি বাঁশতলা এলাকায়। তারা ওই এলাকার কাশেম খন্দকারের ছেলে। প্রশঙ্গত, ২০১৭ সালের ৩০ মার্চ গৃহবধূ সীমা স্বামীর বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। ৫ এপ্রিল রাজাপুর উপজেলার বড়ইয়া ইউনিয়নের কলাকোপা এলাকার জাঙ্গালিয়া নদী থেকে তাঁর মৃতদেহের খন্ডিত অংশ উদ্ধার করে রাজাপুর থানা পুলিশ।

সীমা নিখোঁজ হওয়ার পরে তাঁর বড় ভাই মাজেদুল ইসলাম বাদী হয়ে মিজান খন্দকারসহ চারজনকে আসামি করে রাজাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। রাজাপুর থানার ওসি মো. শামসুল আরেফিন বলেন, আসামিকে বাগেরহাট থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে হাজির করা হবে।

মোঃ আল-আমিন, ঝালকাঠি প্রতিনিধি