শনিবার অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করবেন শিল্পমন্ত্রী

অস্ট্রেলিয়ার ও নিউজিল্যান্ড কারিগরি মান নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠান সরেজমিন পরিদর্শন, দেশ দু’টির মান অবকাঠামোর কারিগরি নিয়ন্ত্রণ আইন সম্পর্কে ধারণা অর্জন এবং মান বিষয়ক অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য আগামীকাল শনিবার অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করবেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

সফরকালে তিনি পাঁচ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন। শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. এনামুল হক, উপপ্রধান ড. মো. আল আমিন সরকার, সহকারী প্রকল্প পরিচালক মু. নূরুল আমিন খান ও মন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব এফ.এম. মাহমুদ (কিরন) প্রতিনিধিদলে সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়া সফরকালে শিল্পমন্ত্রী সে দেশের মান নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠান স্ট্যান্ডার্ডস অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রেলিয়ান কমপিটিশন অ্যান্ড কনজুমার কমিশন, প্রফেশনাল স্ট্যান্ডার্ডস কাউন্সিল, ক্রিস্টচার্চ সিটি কাউন্সিল পরিদর্শন করবেন। এসময় তিনি প্রতিষ্ঠানগুলোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন এবং প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ ও বাস্তবায়ন কৌশল সম্পর্কে ধারণা নেবেন।

আমির হোসেন আমু অস্ট্রেলিয়া সফর শেষে নিউজিল্যান্ড যাবেন। নিউজিল্যান্ড সফরকালে তিনি স্ট্যান্ডার্ডস নিউজিল্যান্ড, মেজারমেন্ট স্ট্যান্ডার্ডস ল্যাবরেটরি ও এশিউর কোয়ালিটি লিমিটেড পরিদর্শন করবেন। এছাড়া তিনি প্রতিষ্ঠানগুলোর সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মান অবকাঠামোর উন্নয়নে দ্বিপাক্ষিক সহায়তার ক্ষেত্র নিয়ে আলোচনা করবেন।

তিনি বাংলাদেশ জাতীয় গুণগতমান ও কারিগরি নিয়ন্ত্রণ কাউন্সিল প্রতিষ্ঠায় দেশ দু’টির কারিগরি সহায়তা চাইবেন।

উল্লেখ্য, ‘জাতীয় গুণগত মাননীতি বাস্তবায়ন এবং বাংলাদেশ জাতীয় গুণগতমান ও কারিগরি নিয়ন্ত্রণ কাউন্সিল প্রতিষ্ঠা’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এ সফর আয়োজন করা হয়েছে। এ প্রকল্পের আওতায় ইতোমধ্যে জাতীয় গুণগত মান (পণ্য ও সেবা) নীতি, ২০১৫ প্রণয়ন করা হয়েছে। এ নীতির আলোকে ‘বাংলাদেশ জাতীয় গুণগতমান ও কারিগরি নিয়ন্ত্রণ কাউন্সিল’ গঠনের কাজ চলছে।

এ সফরের ফলে উন্নত দেশের প্রচলিত মান নিশ্চিতকরণ প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শন এবং এদের কাঠামো বিন্যাস ও কর্মকৌশল সম্পর্কে জানার সুযোগ তৈরি হবে। এর ভিত্তিতে বাংলাদেশের মান কাঠামো উন্নয়নের লাগসই কৌশল নির্ধারণ সহজ হবে। পাশাপাশি দেশের সকল সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের জন্য অভিন্ন মান নির্ধারণের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশি পণ্যের টিকে থাকার সক্ষমতা বাড়ানো সম্ভব হবে। এ উদ্যোগ ভোক্তা সাধারণের অধিকার সুরক্ষা ও পরিবেশবান্ধব পণ্য উৎপাদনের চলমান ধারা বেগবান হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সফর শেষে আগামী ১৬ মে শিল্পমন্ত্রীর দেশে ফেরার কথা রয়েছে।