ইউএনও’র ফোন নম্বর ক্লোন করে চাঁদা দাবি

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) সরকারি মুঠোফোন নম্বর ক্লোন করে বিভিন্ন কর্মকর্তা ও  কর্মচারীর কাছে চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠেছে। বুধবার ইউএনও পরিচালিত ‘ইউএনও ভুরুঙ্গামারী’ নামে ফেসবুকে এ বিষয়ে একটি সতর্কতামূলক পোস্টও দেয়া হয়েছে।

ফেসবুকে দেওয়া স্টাটাসে তিনি ব্যবহৃত সরকারি নম্বরটি উল্লেখ করে লেখেন, আমার সরকারি নম্বরটি ক্লোন করে কে বা কারা অনেকের কাছ থেকে চাঁদা দাবি করছেন। এ বিষয়ে সবাইকে সতর্ক হওয়ার আহ্বান জানানো হলো।

উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ইউএনও স্যারের সরকারি নম্বর থেকে বুধবার বিকেলে আমাকে ফোন দিয়ে বলা হয় পরিষদে ৭০ টন চাল বরাদ্দ এসেছে। আপনি নেবেন কিনা। বললাম স্যার দেন। তবে আমি আশ্চর্য হয়েছি। স্যারতো এভাবে বলে না। পরে সন্ধ্যায় ১০ হাজার টাকা আমার কাছে চায়। সব মিলে আমার সন্দেহ হয়। পরে ইউএনও স্যারকে ফোন দিলে তিনি ফোন করেননি বলে জানান।

এভাবে অনেককে ফোন করা হয়েছে বলেও তিনি আমাকে জানান। উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী এন্তাজুর রহমানের নম্বরে তিনবার কল করা হয়। কিন্তু তিনি ধরতে পারেননি। পরে তিনি ইউএনওকে কল করলে তাকে বিষয়টি জানান।

এ বিষয়ে ভুরুঙ্গামারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএইসএন মাগফুরুর হাসান আব্বাসী বলেন, কয়েকটি ফোন আসে আমার কাছে। তারা সবাই আমার অফিসের লোকজন। তাদেরকে বিভিন্ন কাজের কথা বলে টাকা চেয়েছে। প্রাথমিকভাবে সবাইকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। এটাকে আমরা ট্রেস করার চেষ্টা করছি।

মোঃ মনিরুজ্জামানম, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি