কালবৈশাখী ঝড়ে লঞ্চ চলাচল বিঘ্ন 

সোমবার সকাল পৌনে ১১টা থেকে কালবৈশাখী ঝড়ের কারণে সব ধরনের লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে। সদরঘাট থেকে কোনো রুটেই লঞ্চ ছেড়ে যায়নি। তবে ঝড়-বৃষ্টি কমলে বেলার মধ্যে ফের লঞ্চ চলাচল শুরু হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) কর্মকর্তারা। রোববারও কালবৈশাখী ঝড়ের কারণে সদরঘাট থেকে কয়েক দফা লঞ্চ চলাচল বন্ধ থাকে। সদরঘাট থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে ৪৩টি রুটে লঞ্চ চলাচল করে।

সোমবার বেলা সোয়া ১২টার দিকে ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম-পরিচালক (নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা) আলমগীর কবির  বলেন, ‘ঝড়ের কারণে বেলা পৌনে ১১টা থেকে সদরঘাট থেকে সব ধরনের লঞ্চ চলাচল বন্ধ রয়েছে। এখন ঝড় ও বৃষ্টি কিছুটা কমে এসেছে। হয়তো এক ঘণ্টার মধ্যে আবার লঞ্চ চলাচল শুরু হবে।’

তিনি বলেন, লঞ্চ চলাচল একেবারে বন্ধ করে দেয়া হয়নি। যে সময়টায় কালবৈশাখী হচ্ছে সেই সময়টায় আমরা লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখছি। বিকেলের দিকে আরেকটা ঝড় আসতে পারে বলে আবহাওয়া বিভাগ থেকে আমাদের জানানো হয়েছে। তখনও পরিস্থিতি বুঝে লঞ্চ চালাচল বন্ধ রাখব আমরা।’ আলমগীর কবির আরও বলেন, ‘অভ্যন্তরীণ নদী বন্দরগুলোর জন্য ২ নম্বর সতর্কতা সংকতে থাকায় আইন অনুযায়ী আমরা লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখতে পারি না। তবে ঝড়ের কারণে লঞ্চ চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। ’

রোববার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য পূর্বাভাসে আবহাওয়ার অধিদফতর জানিয়েছে, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, যশোর, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, মাদারীপুর, ঢাকা, কুমিল্লা, নোয়াখালী এবং সিলেট অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কি.মি. বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ২ নম্বর নৌ- হুশিয়ারী সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া দেশের অন্যত্র পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘন্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

সোমবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য জন্য পূর্বাভাসে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, রংপুর, দিনাজপুর, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাংগাইল, ময়মনসিংহ, সিলেট, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা এবং কুমিল্লা অঞ্চলের উপর দিয়ে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘন্টায় ৬০ থেকে ৮০ কি.মি. বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ২ নম্বর নৌ হুঁশিয়ারী সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া দেশের অন্যান্য স্থানে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘন্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কি.মি. বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।