মুন্সিগঞ্জে কথিত বন্ধুক যুদ্ধে ১২ মামলার আসামি খাঁখাঁ আরিফ নিহত

মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলায় ডাকাতি, অস্ত্র ও মাদক সহ ১২ মামলার আসামি সাইফুল ইসলাম আরিফ ওরফে খাঁখাঁ আরিফ পুলিশের সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে। বুধবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার চরহাদ্রাবাদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আরিফের বাড়ি সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের কালিখোলা এলাকায়।

পুলিশ জানায়, আরিফ দীর্ঘদিন ধরে ডাকাতি,ছিনতাই ও অস্ত্র ব্যবসা সহ সব ধরনের অপকর্ম করে আসছিল। তার বিরুদ্ধে থানায় ১২টি মামলা ছিল। মঙ্গলবার রাতে গোপন সুত্রে খবর পাওয়া যায় আরিফ পঞ্চসার ইউনিয়নের দূর্গাবাড়ি এলাকায় অবস্থান করছে। এসময় অভিযান চালিয়ে ১১০ টি ইয়াবাসহ তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পুলিশ বুধবার রাত আড়াইটার দিকে আরিফকে নিয়ে অস্ত্র উদ্ধারের জন্য উপজেলার গজারিয়া কান্দিতে রওনা হয়। পথিমধ্যে কাটাখালি-মুন্সিরহাট সংযোগ সড়কের চর হায়দ্রাবাদ এলাকায় জাকির মোল্লার বাড়ির সামনে গেলে পূর্বেই ওতঁপেতে থাকা আরিফের সহযোগিরা পুলিশের উপর হামলা চালায়।

এ সময় পুলিশের সাথে আরিফদের গোলাগুলি হয়। কিছুখন পড় আরিফের সহযোগিরা দৌড়ে পালায় এবং আরিফকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখাযায় । এসময় সদর থানার পুলিশের উপপরিদর্শক আসলাম ও উপসহকারি উপপরিদর্শক আবুল কালাম ও আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার আরিফকে মৃত ঘোষনা করে। পুলিশের ওই দুই কর্মকর্তা হাতপাতালে ভর্তি আছে।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সালাউদ্দিন লিখন গাজী প্রথম আলোকে জানান, নিহতের মৃত দেহ ময়না তদন্তের জন্য মুন্সিগঞ্জ জেনারলে হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে ।ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ১ টি বিদেশি পিস্তল, ৮ রাউন্ড গুলি, ২ টি রামদা, ১ টি চাপাতি উদ্ধার করে। এ ঘটনায় অস্ত্র, খুন ও পুলিশের উপর আক্রমনের দায়ে তিনটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আব্দুল্লাহ আল মামুন, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি