বান্দরবানে বৌদ্ধ ভিক্ষুকে কুপিয়ে হত্যা, ভিক্ষু শ্রমন পলাতক

বান্দরবানে সদর উপজেলার কুহালং ইউনিয়নে বাকীছড়া এলাকায় এক বৌদ্ধ ভিক্ষুকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বৃস্পতিবার সকালে বাকীছড়া মাঝের পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত বৌদ্ধ ভিক্ষুর নাম নাইন্দা (৭৫) স্থানীয় মারমারা তাকে ম্রাথোয়াই মারমা নামে চিনে। এ ঘটনায় একই বিহারের সবিদ্যা নামে এক জ্যেষ্ঠ শ্রমণ জড়িত থাকতে পারেন বলে স্থানীয়রা সন্দেহ করছেন। ঘটনার পর থেকে শ্রমন সবিদ্যা পলাতক রয়েছে।

ঘটনার খবর পেয়ে বেলা ১২ টার দিকে সদর থানা থেকে পুলিশ যায় ঐ বিহারে। পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, বান্দরবান সদর উপজেলার কুহালং ইউনিয়নের বাকিছড়া-মাঝেরপাড়া বৌদ্ধ বিহারের উপ-অধ্যক্ষ ভান্তে মংথুই সাং প্রকাশ নাইন্দা ভিক্ষু (৭৮) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহতের মুখে এবং গলায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঘটনার পর থেকে বৌদ্ধ বিহারের শ্রবন ভান্তে (শিক্ষা নবিশ) ম্রাথোয়াই (৪২) পলাতক রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে ছোট ভান্তে বিহারের বড় বৌদ্ধ ভিক্ষু’কে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে গেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত ভান্তের লাশ উদ্ধার করেছে। লাশটি ময়না তদন্তের জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় কারা জড়িত তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

বান্দরবানে বৌদ্ধ ভিক্ষুকে কুপিয়ে হত্যা, ভিক্ষু শ্রমন পলাতক

স্থানীয় কুহালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সানু প্রু মারমা বলেন, ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে বিহারের উপ-অধ্যক্ষ নাইন্দা ভিক্ষু’কে হত্যা করেছে ছোটভান্তে ম্রাথোয়াই। আগে সে ক্যায়ামলং বিহারে ছিল, সেখান থেকে এ বিহারে এসেছে তিন বছর হচ্ছে। শ্রবণ ছোটভান্তেটি মানষিকভাবে অসুস্থ। নিহত উপ-অধ্যক্ষর সঙ্গে তার শ্রবণের কয়েকবার কথা কাটাকাটি হয়েছিল। তারই জের ধরে এ হত্যাকান্ড ঘটে থাকতে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোহেল কান্তি নাথ, বান্দরবান প্রতিনিধি