চট্টগ্রাম বন্দরকে গতিশীল করতে ক্যাপিটাল ড্রেজিং এর কাজ শুরু

বাংলাদেশের অর্থনীতির চালিকা শক্তি চট্টগ্রাম বন্দরকে আরো গতিশীল করে তুলতে এবং নির্বিগ্নে জাহাজ চলাচল ও দ্রুত পন্য খালাস করতে আগামী একমাসের মধ্যে পরিকল্পিত ভাবে ক্যাপিটাল ড্রেজিং এর কাজ শুরু করা হবে। এতে বন্দরের আর্থিক ক্ষতি কমে আসবে। ব্যবসায়ীরা অল্প সময়ে পন্য ডেলিবারী পাবেন। বন্দর হবে আরো সচল ব্যাবহারকারী বান্ধব।

আজ মঙ্গলবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে চট্টগ্রাম বন্দরের ১৩১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অথাৎ বন্দর দিবস উপলক্ষে শহীদ ফজলুর রহমান মুন্সী অডিটোরিয়ামে ‘আয়েজিত চট্টগ্রামের গন মাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় বন্দর চেয়ারম্যান কমডোর জুলফিকার আজিজ এ সব কথা বলেন।

তিনি বলেন শীঘ্রই ট্রাক টার্মিনাল নির্মান করে কন্টেইনার ও কার্গো হ্যান্ডলিং দ্রুত করে জাহাজ এবং কন্টেইনার জট কমিয়ে আনা হবে। বন্দরে জাহাজের গড় অবস্থানের সময় কমানো, নতুন লাইটারেজ জেটি ও ইয়ার্ড নির্মান করা হবে। এতে কেনা হচ্ছে আধুনিক যন্ত্রপাতি। এক্ষেত্রে সরকারের রপকল্প-২০২১ সামনে রেখে স্ট্র্যাটেজিক মাস্টারপ্ল্যানের ভিত্তিতে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়েছে। যাতে দেশের প্রধান সমুদ্রবন্দরকে ব্যবহারকারী বান্ধব হিসেবে গড়ে তোলা যায়।

বন্দর চেয়ারম্যান আরো বলেন, খোলা পণ্য (কার্গো), কনটেইনার ও জাহাজ হ্যান্ডলিংয়ের ক্রমবর্ধমান প্রবৃদ্ধি সামাল দেওয়া চট্টগ্রাম বন্দরের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সরকারের দিকনির্দেশনায় নিউমুরিং কনটেইনার টার্মিনালের (এনসিটি) জন্য হ্যান্ডলিং ইক্যুইপমেন্ট সংগ্রহ করে পূর্ণাঙ্গভাবে চালুর উদ্যোগ নিয়েছে। ইতিমধ্যে ৯টি রাবার টায়ার গ্যান্ট্রি ক্রেন, ৪টি স্ট্র্যাডেল কেরিয়ার, ৫টি কনটেইনার মুভার, ১টি রেল মাউন্টেড গ্যান্ট্রি ক্রেন সংগ্রহ করে বন্দরের ইক্যুইপমেন্ট ফ্লিটে সংযুক্ত করেছি। ৩টি স্ট্র্যাডেল কেরিয়ার শিপমেন্ট করা হয়েছে, এগুলো শিগগির বন্দরে পৌঁছবে।

তিনি জানান, ৬টি শিপ টু শোর গ্যান্ট্রি ক্রেন, ২টি আরটিজি, ১টি মোবাইল হারবার ক্রেন সংগ্রহের আমদানি ঋণপত্র (এলসি) খোলা হয়েছে। ৪টি শিপ টু শোর গ্যান্ট্রি ক্রেন সংগ্রহের দরপত্র মূল্যায়ন শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ৬টি আরটিজির এলসি খোলা প্রক্রিয়াধীন ও ৩টি আরটিজির দরপত্র মূল্যায়নাধীন আছে। ৩টি স্ট্র্যাডেল কেরিয়ার সংগ্রহের জন্য শিগগির চুক্তি সম্পাদন হবে। এ ছাড়া সরকারী বেসরকারী অংশীরিত্বের ভিত্তিতে লালদিয়ার চরে মাল্টিপারপাস টার্মিনাল নির্মানের জন্য ৫ টি প্রতিষ্টানকে তালিকা ভূক্ত করা হয়েছে।

এদিকে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বন্দর চেয়ারম্যান বলেন ফারমার্স ব্যাংকে বন্দরের জমা রাখা ১৮০ কোটি টাকা সরিয়ে নিরাপদ রাখতে মন্ত্রনালয়কে চিঠি দেয়া হয়েছে। তবে গত দুই বছর ধরে ওই ব্যাংকে আর টাকা জমা রাখা হচ্ছেনা।

বন্দর চেয়ারম্যান বলেন, ব্রিটিশ-ইন্ডিয়া সরকার ১৮৮৭ সালে পোর্ট কমিশনার্স অ্যাক্ট প্রণয়ন করে যা ১৮৮৮ সালের ২৫ এপ্রিল কার্যকর হয়। তখন থেকে চট্টগ্রাম বন্দর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে। তাই প্রতি বছর ২৫ এপ্রিল বন্দর দিবস পালন করে আসছে। এবার বন্দর দিবসে অবসর নেওয়া কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংবর্ধনা দেওয়া হবে।

সভায় বন্দরের সদস্য কমডোর শাহিন রহমান, ক্যাপ্টেন খন্দকার আকতার হোসেন ও কামরুল আমিন, বন্দর সচিব ওমর ফারুক প্রমুখ উপস্থিত।

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here