অস্ট্রেলিয়া সফরে ‘গ্লোবাল উইমেন লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

অস্ট্রেলিয়া সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘গ্লোবাল উইমেন লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ দেওয়া হবে। নারীর সামগ্রিক উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে অসামান্য অবদান রাখার জন্য এ সম্মাননা দেওয়া হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীকে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী মঙ্গলবার (২৪ এপ্রিল) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। আগামী বৃহস্পতিবার (২৬ এপ্রিল) প্রধানমন্ত্রীর অস্ট্রেলিয়া সফর ঘিরে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আগামী বৃহস্পতিবার থেকে অস্ট্রেলিয়ায় তিনদিনের সফরের সময় নারী নেতৃত্বে সফলতার স্বীকৃতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী সিডনিতে এই পুরস্কার গ্রহণ করবেন।

তিনি জানান, অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলের আমন্ত্রণে ২৬ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত দেশটিতে সফরে থাকবেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশে লিঙ্গ সমতা নিশ্চিত করার জন্য ২০১৮ সালের বিশ্ব নারী শীর্ষ সম্মেলনে (গ্লোবাল সামিট অব উইমেন) তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ‘২০১৮ গ্লোবাল সামিট অব উইমেন’ শীর্ষক বৈঠকে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী এ সফর করবেন। এ সফরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী, নারী ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সদস্যরা, পররাষ্ট্র এবং নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ একাধিক কর্মকর্তারা তার সফরসঙ্গী থাকবেন।

এর আগে গ্লোবাল উইমেন লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে, জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব বান কি মুন, চিলির সাবেক প্রসিডেন্ট মিশেল ব্যাশেলেট, আয়ারল্যান্ডের সাবেক প্রসিডেন্ট মেরি রবিনসন।

অস্ট্রেলিয়া সফরে উইমেন সামিটে অংশ নেওয়ার পাশাপাশি দেশটির প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুলের সঙ্গে ২৮ এপ্রিল দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন শেখ হাসিনা। সম্মেলনের সাইড লাইন বৈঠকে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীসহ বেশ কয়েকটি দেশের সরকার প্রধানদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক হতে পারে।

১৯৯০ সাল থেকে প্রতি বছর গ্লোবাল উইমেন সামিট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গত বছর টোকিওতে এ সামিট অনুষ্ঠিত হয়। এবারের সামিটের আয়োজক অস্ট্রেলিয়া। বিশ্বের ৬০টি দেশের প্রায় এক হাজারের বেশি প্রতিনিধি সামিটে অংশ নেবেন। বিভিন্ন দেশের সরকার প্রধানরাও এতে যোগ দেবেন।