হাইপারলুপে মাত্র ১২ মিনিটে দুবাই থেকে আবুধাবি

বিমানের চেয়েও গতিশীল এক অদ্ভুত বাহন চালু হতে যাচ্ছে দুবাই থেকে আবুধাবির মধ্যে। নতুন এই পরিবহনব্যবস্থার নাম হাইপারলুপ। বায়ুশূন্য টানেলের মধ্য দিয়ে প্রচণ্ড গতিতে যাতায়াত করবে বাহনগুলো। ২০২০ সালের মধ্যেই যাত্রীরা এতে করে যাতায়াত করতে পারবেন। এটি চালু হলে এটিই হবে বিশ্বের প্রথম বাণিজ্যিক হাইপারলুপ যাতায়াত ব্যবস্থা। আর তা প্রতি ঘণ্টায় ছুটে চলবে ১২০০ কিলোমিটার বেগে।

প্রাথমিকভাবে আবু ধাবির আল মাকতুম আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে দুবাই সীমান্ত পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার লম্বা হাইপারলুপ ট্র্যাক (যে টিউবের ভিতর দিয়ে বাহনটি চলাচল করবে) নির্মিত হচ্ছে। পরবর্তী সময়ে তা সৌদি আরবের রিয়াদ পর্যন্ত এক হাজার কিলোমিটার বর্ধিত করা হবে।

প্রকল্পটির দায়িত্ব পেয়ছে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘হাইপারলুপ ট্রান্সপোর্টেশন টেকনলোজিস’। প্রতিষ্ঠানটির দাবি, দুর্বারগতির এ যাতায়াত ব্যবস্থা যাত্রী পরিবহণ ছাড়াও বিভিন্ন বন্দর ও বাণিজ্যিক কেন্দ্রগুলোতে কার্গো বহনে যুগান্তরকারী ভূমিকা পালন করবে।

প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান বিবব গ্রেস্তা বলেন, এটা হতে চলেছে বিশ্বের প্রথম বাণিজ্যিক হাইপারলুপ ব্যবস্থা। ভবিষ্যতে মধ্যপ্রাচ্যের একটি বড় অঞ্চলকে হাইপারলুপ যাতায়াতের আওতায় আনার প্রত্যাশা রয়েছে আমাদের।

হাইপারলুপ যাতায়াত ব্যবস্থার ধারণাটি ২০১৩ সালে প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে তুলে ধরেন মার্কিন উদ্ভাবক ইলন মাস্ক। তার প্রস্তাবিত আইডিয়াতে বলা হয়, হাইপারলুপের মাধ্যমে লস অ্যাঞ্জেলাস থেকে সান ফ্রান্সিস্কোতে যাতায়াত করা সম্ভব মাত্র ৩০ মিনিটে, অর্থাৎ দ্রুতগামী প্লেনে যাতায়াতের চেয়েও অর্ধেক সময়ে।

সম্প্রতি দুবাইতে ভার্জিনের উদ্যোগে হাইপারলুপ প্রযুক্তির একটি প্রদর্শনীও অনুষ্ঠিত হয়েছে। হাইপারলুপের যে বাহনগুলোর মধ্যে যাত্রী পরিবহন করা হবে, সেগুলোকে পড বলা হচ্ছে। দুবাইতে বেশ বিলাসবহুল ও স্বাচ্ছন্দ্যময় ডিজাইনের পড প্রদর্শন করা হয়েছে। প্রতিটি পডে ১০ জন করে যাত্রী পরিবহন করা যাবে বলে জানানো হয়েছে। পডগুলোতে বেশ আরামদায়ক আসন ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়া যাত্রীদের যেন একঘেয়েমি না আসে সেজন্য এগুলোর আসনের সঙ্গে রয়েছে হাই রেজুলিশনের স্ক্রিন।

দুবাই ও আবুধাবির মাঝে হাইপারলুপের টানেল তৈরি করা হবে পিলারের ওপরে। বায়ুশূন্য হওয়ার কারণে ওই টানেলে বায়ুর ঘর্ষণের ফলে সৃষ্ট কোনো বাধা ছাড়াই অবিশ্বাস্য গতিতে দৌড়াবে পডগুলো। বলা হচ্ছে, এই ট্রেনের গতি হবে ঘণ্টায় ১,২০০ কিলোমিটার। প্রতিষ্ঠানটি প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, এর মাধ্যমে মাত্র ১২ মিনিটে দুবাই থেকে আবুধাবিতে যাতায়ত করা যাবে

দুবাইয়ের পাশাপাশি ভারতেও এমন হাইপারলুপ চালু করার কথা ভাবছে প্রতিষ্ঠানটি। সম্প্রতি দেশটির কেন্দ্রীয় পরিবহন মন্ত্রণালয়ের কাছে এ নিয়ে একটি প্রস্তাবও দিয়েছে তারা। দুবাই ও আবুধাবির মাঝে যাতায়াতকারী হাইপারলুপ প্রতি ঘণ্টায় উভয় দিকে ১০ হাজার যাত্রী পরিবহন করতে পারবে বলে আশা করছে।