ছাত্রীদের আবার ফেরত আনা হয়েছে হলে

শুক্রবার রাতে কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে ফেইসবুকে অপপ্রচারের অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হল থেকে বের করে দেওয়া তিন ছাত্রীকে আবার হলে ফেরত আনা হয়েছে। হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক সাবিতা রিজওয়ানা রহমান বলেন, “ওদের তিনজনকেই হলে ফেরত আনা হয়েছে। দুজন এসেছে দুপুরে, আর একজন এসেছে বিকালে।” বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে আন্তঃহল ফুটবল প্রতিযোগিতায় সুফিয়া কামাল হলের হয়ে ওই ছাত্রীদের দুজন অংশ নিয়েছেন।

কোটা সংস্কারের আন্দোলনের মধ্যে ছাত্রলীগ নেত্রী ইফফাত জাহান এশাকে হেনস্তার ঘটনার তদন্তে কবি সুফিয়া কামাল হল কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার রাতে ছাত্রীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে। এরই এক পর্যায়ে রাত ১০টা থেকে ১টার মধ্যে ওই হলের তিন ছাত্রীকে তাদের স্থানীয় অভিভাবকের কাছে তুলে দেওয়া হয়। আরেক ছাত্রীর অভিভাবক এলেও গভীর রাত হয়ে যাওয়ায় শেষ পর্যন্ত ওই শিক্ষার্থীকে হলে রাখা হয়।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, যারা সাম্প্রতিক কোটা সংস্কার আন্দোলনে যুক্ত ছিলেন, তাদের ডেকে ডেকে ‘তদন্তের নামে হয়রানি’ করছে হল কর্তৃপক্ষ। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান বলেছেন, ফেইসবুকে ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলে ‘সরকারবিরোধী বক্তব্য ও অপতথ্য ছড়ানোর কারণে’ তিন ছাত্রীর বিরুদ্ধে ওই ব্যবস্থা নিয়েছে হল কর্তৃপক্ষ।

এই ঘটনার প্রতিবাদে বিকালে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন করে আসা ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’। গভীর রাতে ছাত্রীদের এভাবে বের করে দেওয়াকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে একটি ‘কলঙ্কজনক অধ্যায়’ হিসেবে বর্ণনা করে প্রধ্যক্ষের অপসারণ দাবি করে তারা।