প্যানেল মেয়রকে হাতুড়িপেটা, আনা হচ্ছে ঢাকায়

শরীয়তপুরে মাদকের বিরুদ্ধে কথা বলায় প্যানেল মেয়রকে হাতুড়িপেটা করেছে এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ীরা। পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হোসেন মো. আলমগীর মৃধাকে (৩৮) হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে তারা।

আজ শুক্রবার (১৩ এপ্রিল) ভোর পৌনে ৬টার দিকে শরীয়তপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাগদী দক্ষিণপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

উল্লেখ্য, প্যানেল মেয়র আলমগীর মৃধা এ ঘটনার পূর্বে একটি সভা করেন। উক্ত সভায় তিনি ব্যবসায়ীদের মাদক ব্যবসা থেকে বিরত থাকতে বলেন। ধারণা করা হচ্ছে, এ ঘটনার জের ধরেই তার ওপর হামলা চালায় ওই মাদকব্যবসায়ীরা।

জানা যায়, প্যানেল মেয়র আলমগীর মৃধা আজ ভোড়ে ফজরের নামাজ পরে প্রাতভ্রমণ শেষে তার নির্বাচনী এলাকার জাকির মাদবরের চায়ের দোকানে চা পান করছিলেন। তখন কাগদী গ্রামের চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী রমিজ উদ্দিন বেপারীর ছেলে শাহজালাল বেপারী (৩৫), হারুন মাদবরের ছেলে জালাল মাদবর (৩৫) ও জলিল শেখের ছেলে সাদ্দাম হোসেন শেখ (২৫) মিলে প্যানেল মেয়রকে ডেকে নিয়ে এলোপাতাড়িভাবে শরীরের বিভিন্নস্থানে হাতুড়ি দিয়ে পেটায়। তখন তিনি জ্ঞান হারিয়ে সড়কে পড়ে যান।

পরে তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয়রা। অবস্থার অবনতি দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে ঢাকা মেডিকেলে রেফার্ড করেন।

শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র মো. রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল বলেন, যারা প্যানেল মেয়রের ওপর হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালিয়েছে তারা চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তাদের দ্রুত গ্রেফতার করা হোক, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক। এ হামলার তীব্র নিন্দা জানাই।

এ ব্যাপারে পালং মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। অপরাধীদের গ্রেফতারে পুলিশ কাজ করছে।