‘কারণে অকারণে সংবাদ সম্মেলন করেন বিএনপি নেতারা’

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, বিএনপির সকাল বিকেল সংবাদ সম্মেলন খেঁক শিয়ালের ডাকের মত বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেন, রিজভী আহমেদসহ বিএনপি নেতারা পার্টি অফিসে বসে কারণে অকারণে সংবাদ সম্মেলন করেন। সব দোষ সরকারের উপর চাপানোর যে চেষ্টা করেন তা খেঁক শিয়ালের ডাক ছাড়া অন্য কিছু নয়। তিনি আরও বলেন, সরকাররি চাকরিতে কোটা ব্যবস্থ্যা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মাঝে বিএনপি জামাতের সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ঢুকেছে।

বুধবার (১১ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ আয়োজিত ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাসভবনে ভাঙচুর ও শিক্ষাঙ্গনে নৈরাজ্য সৃষ্টির প্রতিবাদে’ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, গোলযোগ সৃষ্টিকারীরা আন্দোলনকারীদের ভেতরে ঢুকেছে। তারা রাজনৈতিক ফায়দা নেয়ার চেষ্টা করছে। তারা এই আন্দোলনকে রাজনীতিকরণ করে আপনাদের পিঠে ছুরি মারার চেষ্টা করছে। অথচ বিশৃঙ্খলা করার কোন প্রয়োজন নেই। সরকার আপনাদের (আন্দোলনকারীদের) প্রতি সহানুভূতিশীল।

হাছান মাহমুদ বলেন, আন্দোলনকারীরা ভিসির বাসভবনে গ্যাসলাইন খুলে আগুন ধরিয়ে দিতে চেয়েছিল। বাসভবনের ফ্যান, বাথরুমের কমোড ভেযেছে, স্বর্ণালংকার লুট করেছে। এসব বিএনপি জামাত গোষ্ঠীর পেট্রোল বোমা বাহিনী ছাড়া অন্য কেউ করতে পারে না।

তিনি বলেন, সব সময় কোটা সংস্কার হয়ে এসেছে, কোটা এখনো সংস্কার করতে কোন বাধা আছে বলে আমরা মনে করি না। সরকার আন্দোলনকারীদের প্রতি সহানুভূতিশীল। তাই বলে রাস্তা বন্ধ করে আন্দোলন করা সমীচীন নয়। আন্দোলনকারীদের প্রতি সহানুভূতিশীল বলেই সরকারের পক্ষ থেকেই ইতিমধ্যে কোটা সংস্কারের ব্যাপারে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান দুর্জয়ের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা বলরাম পোদ্দার, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের কার্যকরি সদস্য মিনহাজ উদ্দিন মিন্টু, শাহবাগ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম আতিকুর রহমান, মুক্তযোদ্ধা প্রজন্মলীগের দপ্তর সম্পাদক জাহিদ হাসান প্রমুখ।