চারদিকে টিয়ারসেলের ঝাজ, জ্বলছে টায়ার ও পরিত্যক্ত কাঠ

পূর্ব ঘোষিত পদযাত্রা কর্মসূচিতে অংশ নিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে জড়ো হয়েছেন আন্দোলনকারী সাধারণ শিক্ষার্থী ও চাকরি প্রত্যাশীরা। কোটা সংস্কারের দাবিতে শাহবাগে আন্দেলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর টিয়ারসেল ও ফাঁকা গুলি চালিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে পুলিশ। রাতে পুলিশ আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এরপরই ফাঁকা হয়ে যায় শাহবাগ। টিয়ারশেলের আঘাতে আহত হয়েছেন অনেক শিক্ষার্থী।

রাত পৌনে ১২টা। অন্যান্য স্বাভাবিক দিনগুলোতে এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পিনপতন নীরবতা নেমে আসলেও আজ গভীর রাতেও ক্যাম্পাস উত্তাল। চারুকলার সামনে কয়েক হাজার সাধারণ শিক্ষার্থী গলা ফাটিয়ে শ্লোগান দিচ্ছে গুলি করে আন্দোলন বন্ধ করা যাবে না, যাবে না। মিছিলকারীদের সামনে জ্বলছে আগুন। টিয়ারসেলের ঝাজ থেকে বাঁচতে ওরা টায়ার ও পরিত্যক্ত কাঠ ও বাঁশে আগুন ধরিয়ে রেখেছে।

আন্দোলনকারীদের মধ্যে একটি ছাত্র লাল সবুজ পতাকা উঁচিয়ে ধরে আছেন। আগুনের আলোতে জ্বলজ্বল করে উঠছে আর বাতাসে পতপত করছে পতাকাটি। শাহবাগ থানার সামনে সারিবদ্ধ করে দাঁড়িয়ে থাকা পুলিশ সদস্যরা সিনিয়র অফিসারদের নির্দেশের অপেক্ষায়। পরিস্থিতি শান্ত রাখতে পুলিশের একজন ঊধ্বতন কর্মকর্তা মাইক হাতে বারবার আন্দোলনকারিীদের পিছু হটতে বললেও কিছুতেই পিছু হটতে রাজি নয় তারা।

এ সময় পুলিশ সাঁজোয়া যান ও জলকামান নিয়ে ধাওয়া করে আন্দোলনকারিীদের চারুকলার সামনে থেকে পিছু হটিয়ে দেয়। তবে আন্দোলনকারীরা কিছুক্ষণের মধ্যেই আগের স্থানে ফিরে এসে আবার শ্লোগান দিতে থাকে