টিয়ারসেল-ফাঁকা গুলি চালিয়ে ছত্রভঙ্গ করেছে পুলিশ

কোটা সংস্কারের দাবিতে শাহবাগে আন্দেলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর টিয়ারসেল ও ফাঁকা গুলি চালিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে পুলিশ। আজ রবিবার রাত পৌনে ৮টার দিকে পুলিশ শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এরপরই ফাঁকা হয়ে যায় শাহবাগ। টিয়ারশেলের আঘাতে আহত হয়েছেন অনেক শিক্ষার্থী।

এর আগে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে রবিবার দুপুর ৩টা ৫ মিনিটে শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নেয় তারা। রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরুদ্ধ করে রাখে আন্দোলনকারী সাধারণ শিক্ষার্থী ও চাকরি প্রত্যাশীরা। এসময় আন্দোলনে বাধা দিতে আসা পুলিশ সদস্যদের গোলাপ ফুল দিয়ে তাদের সাথে থাকার আহ্বান জানায় আন্দোলনকারীরা।

কর্মসূচির অংশ হিসেবে রবিবার বেলা ২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে পদযাত্রাটি শুরু হয়। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনের রাস্তা দিয়ে বের হয়ে রাজু স্মৃতি ভাস্কর্য হয়ে নীলক্ষেত ও কাঁটাবন ঘুরে শাহবাগের মোড়ে এসে অবস্থান নেন তাঁরা। এই কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন হাজারো শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থী। তাঁদের দাবি, বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি সংস্কার করে কমাতে হবে। এই চাকরিতে কোটা সব মিলিয়ে ১০ শতাংশে নামিয়ে আনতে হবে।

বর্তমানে  সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা, ১০ শতাংশ জেলা কোটা, ১০ শতাংশ নারী কোটা, ৫ শতাংশ ক্ষুদ্র-নৃগোষ্ঠী কোটা এবং ১ শতাংশ প্রতিবন্ধী কোটাসহ মোট ৫৬ ভাগই কোটাধারীদের জন্যে বরাদ্দ। আর ৪৪ ভাগ মেধায় নিয়োগ দিয়ে থাকে সরকার।