হেলমেট পরিহিতদের ফুল দিলেন ডিসি-এসপি

হেলমেট পরিহিত মোটর সাইকেল চালকদের উৎসাহ জোগাতে রাস্তায় নেমে ফুল ও মিষ্টি বিতরণ করলেন বান্দরবান জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন ও পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার। বৃহস্পতিবার সকালে বান্দরবান ট্রাফিক মোড় সংলগ্ন রাস্তায় দাড়িয়ে হেলমেট পরিহিত মোটর সাইকেল চালকদের দাড় করিয়ে ফুল ও মিষ্টি খাওয়ান তারা।হেলমেট পরিহিতদের ফুল দিলেন ডিসি-এসপি

বান্দরবানে দিন দিন মোটর সাইকেল দূর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। হেলমেট না পরার কারণে দূর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বাড়ছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। তাই হেলমেট পরতে উৎসাহিত করার জন্য মোটর সাইকেল চালকদের রাস্তায় নেমে মিষ্টি ও ফুল বিতরণ করলেন জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার।

এদিকে এই উদ্যোগকে ভাল দিকে মনে করে মোটর সাইকেল চালক আনিছুর রহমান বলেন, বান্দরবান শহরটি ছোট হওয়ার কারণে আমরা হেলমেট না পরে গাড়ী চালতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। হেলমেট পরে গাড়ী চালালে আমরা নিজেরাই উপকৃত হব এবং বড় ধরনের দূর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পাব। আর এই ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করার ফলে আমরা এখন হেলমেট পরে মোটর সাইকেল চালাচ্ছি। আস্তে আস্তে হেলমেট পরে মোটর সাইকেল চালাতে আমরা অভ্যস্ত হয়ে যাব।

পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার বলেন, বান্দরবানে মোটর সাইকেল চালকরা আগে হেলমেট পড়ে গাড়ী চালাতো না তাই দূর্ঘটনা ঘটলে বেশীরভাগ সময় মোটর সাইকেল চালক মারা যায়। গত কিছুদিন পূর্বেও মোটর সাইকেল দূর্ঘটনায় বান্দরবানে দুই মোটর সাইকেল চালক নিহত হয়েছে। তারা কেউ ই হেলমেট পড়া ছিল না।

যদি তারা হেলমেট পড়া থাকতো তাহলে হয়ত বেঁচে যেতে পারত। তাই পুলিশ বিভাগ মোটর সাইকেল চালকদের হেলমেট পড়তে উৎসাহিত করছে। এ কয়েকদিনে অনেক পরিবর্তন ও হয়েছে। এখন সবাই হেলমেট পড়ে মোটর সাইকেল চালাচ্ছে। তাই তারা যাতে নিয়মিত এটা অভ্যাস করে সে জন্য তাদের উৎসাহ দিতে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি এবং মিষ্টি মুখ করাচ্ছি।

সোহেল কান্তি নাথ, বান্দরবান প্রতিনিধি