হাইফা ও তেল আবিব নিশ্চিহ্ন করার হুমকি ইরানের

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রভাবশালী আলেম আয়াতুল্লাহ আহমাদ খাতামি বলেছেন, ইহুদিবাদী ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেওয়ার ঘটনা সৌদি আরবের জন্য কলঙ্ক। আজ তেহরানের জুমার নামাজের খুতবায় তিনি এ কথা বলেন।

তেহরানের জুমার নামাজের অস্থায়ী খতিব আয়াতুল্লাহ খাতামি আরও বলেন, অতীতেও সৌদি আরবের অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উসকানিতে লেবানন ও গাজায় হামলা চালিয়েছে ইহুদিবাদী ইসরাইল। তাকফিরি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে সহযোগিতা এবং ইয়েমেনসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে মানুষ হত্যার দায়ে ইসলামি আদালতে সৌদি শাসক গোষ্ঠীর বিচার দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, ইহুদিবাদী ইসরাইলের অপরাধযজ্ঞের সহযোগী হচ্ছে সৌদি আরব। দেশটি ইরাক ও লেবাননের নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করেছে এবং লাখ লাখ ডলার খরচ করেছে। তবে এখন সৌদি শাসক গোষ্ঠীর পতনের নানা আলামত স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

গত কয়েক দিনে গাজায় বহু ফিলিস্তিনিকে হত্যার নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, রক্তের ওপরই দখলদার ইসরাইলের অস্তিত্ব গড়ে উঠেছে। প্রতিরোধের মাধ্যমেই তাদের জবাব দিতে হবে। ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে ফিলিস্তিনিদের দীর্ঘ দিনের আলোচনা প্রক্রিয়ার ব্যর্থতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আলোচনার ফলে ফিলিস্তিনিদের মধ্যে কেবল শরণার্থীর সংখ্যাই বেড়েছে। এ অবস্থায় তাদের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব কৌশলগত ভুল এবং বিশ্বাসঘাতকতা।

ইহুদিবাদী ইসরাইলের গণহত্যার বিষয়ে মুসলিম দেশগুলোর নিরবতার সমালোচনা করে আয়াতুল্লাহ খাতামি বলেছেন, সৌদি মুফতিরা গাজার সমর্থনে মিছিলকে হারাম ঘোষণা করেছেন এবং ইসরাইল তাদের ওই ফতোয়াকে স্বাগত জানিয়েছে। সৌদি মুফতিদের এ পদক্ষেপ ইসলাম বিরোধী এবং মুসলিম বিশ্বের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা।

লেবাননের হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে ইসরাইলের হুমকিকে অলীক স্বপ্ন হিসেবে অভিহিত করেন আয়াতুল্লাহ খাতামি। তিনি বলেন, আবারও হিজবুল্লাহর শক্তি পরীক্ষা করা হলে ইসরাইলের হাইফা ও তেল আবিব নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।