হজ গমনেচ্ছুদের নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ, এখনও সাত সহস্রাধিক কোটা শূন্য

চলতি বছর পবিত্র হজ গমনেচ্ছুদের নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ হয়েছে গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ এপ্রিল)। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বেধে দেয়া সময়ে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ১৬ হাজার ৩৩৯ জন নিবন্ধন করেছেন। তবে নির্ধারিত সময়ের পর এখনও ৭ হাজার ২০০টি কোটা শূন্য রয়েছে। জানা গেছে, নির্দিষ্ট সময়ে সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬ হাজার ৯৯ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ১০ হাজার ২৪০ জনসহ মোট নিবন্ধিত হজগমনেচ্ছুর সংখ্যা ১ লাখ ১৬ হাজার ৩৩৯ জন।

চলতি বছর হজে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজার ও সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৭ হাজার ১৯৮ হজযাত্রী হজ পালন করতে সৌদি যাওয়ার কথা রয়েছে। তন্মধ্যে বেসরকারি ব্যবস্থাপনার হজ গাইড ও মোনাজ্জেম ছাড়া হজ গমনেচ্ছুদের জন্য নির্ধারিত কোটা ১ লাখ ১৬ হাজার ৬০০ এবং সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে গাইড ও রাষ্ট্রীয় খরচের হজযাত্রীর সংখা ছাড়া হজযাত্রীর নির্ধারিত সংখ্যা ছয় হাজার ৭৪০ জন।

সে হিসেবে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬ হাজার ৫৫৯ জন ও সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬৪১ জনের কোটাসহ এখনও মোট শূন্য কোটার সংখ্যা ৭ হাজার ২০০। চলতি বছর আগামী ১৪ জুলাই থেকে হজ ফ্লাইট শুরুর কথা রয়েছে। এদিকে শূন্য কোটা পূরণে প্রাক নিবন্ধনকারীদের মধ্যে থেকে আবার নিবন্ধনে সময় দেয়া হবে কিনা ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

তবে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন বলেন, চলতি বছর হজ নিবন্ধনের শূন্য কোটা পূরণে আগামী রোববার (৮ এপ্রিল) সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। ওইদিন (রোববার) বলা যাবে আসলে কী হবে, তবে নতুন করে সুযোগ দেয়া হতে পারে।