ম্যাক্রোঁর সংস্কার প্রস্তাবে শ্রমিকদের বিক্ষোভ 

ফ্রান্স সরকার সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর সংস্কার কার্যক্রমের অংশ হিসেবে দেশটির পার্লামেন্টের আসন সংখ্যা প্রায় এক তৃতীয়াংশ কমিয়ে আনার একটি পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে। কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে বড় এ পরিবর্তন বিষয়ে ফরাসি প্রধানমন্ত্রী এদ্যুয়া ফিলিপ ও বিরোধীদল নিয়ন্ত্রিত সিনেট একমত হয়েছে বলে জানায় বিবিসি।

তবে ফ্রান্সের প্রধানমন্ত্রী যখন পার্লামেন্টের আসন সংস্কার বিষয়ে বিস্তৃত পরিকল্পনার কথা জানাচ্ছেন, তখনও সরকারের শ্রম আইন পরিবর্তনের একটি পরিকল্পনার বিরুদ্ধে রেল শ্রমিকদের দ্বিতীয় দিনের মতো ধর্মঘট চলছিল। ফ্রান্সের সরকারি রেল কোম্পানি এসএনসিএফ-এর কর্মীদের নেতৃত্বে শুরু হওয়া এ ধর্মঘটকে গত বছরের মে মাসে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁর জন্য সবচেয়ে বড় পরীক্ষা হিসেবে দেখা হচ্ছে।

বর্তমান আইনে এসএনসিএফের কর্মীদের স্বয়ংক্রিয়ভাবে বেতন বৃদ্ধি, আগেভাগে অবসরে যাওয়াসহ বছরে ২৮ দিনের সবেতন ছুটির সুযোগ পেতেন। স্থায়ী চাকুরিরতদের বরখাস্তের নিয়ম ছিল না; কর্মীদের নিকটাত্মীয়দের জন্য বিনা ভাড়ায় রেল ভ্রমণের সুযোগ ছিল। ম্যাক্রোঁর সংস্কার প্রস্তাবে শ্রমিকদের এসব সুযোগ-সুবিধা কমবে।

ঋণ জর্জরিত রেল খাতকে ঢেলে সাজানোর জন্য সরকার এ পরিকল্পনার কথা বললেও শ্রমিকদের অভিযোগ, আইন সংস্কারের মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় খাতগুলোকে বেসরকারিকরণের পথে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।