নতুন আইন, সামরিক প্রশিক্ষণ নিতে হবে নারীদেরকেও

নতুন একটি আইন সই করেছেন কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আলে সানি। নতুন এ আইনে বলা হয়েছে দেশে নারীদেরকেও স্বেচ্ছায় এক বছরের জন্য সামরিক প্রশিক্ষণ নিতে হবে।

কাতারের সরকারি বার্তা সংস্থা কিউএনএ জানিয়েছে, শেখ তামিম গতকাল (বৃহস্পতিবার) এ আইনে সই করেন যাতে রাখা হয়েছে ১৮ থেকে ৩৫ বছরের নারীদেরকে সামরিক প্রশিক্ষণ নেয়ার বিধান। এ আইনের আওতায় নারীদের সামরিক প্রশিক্ষণ হবে ‘স্বেচ্ছাসেবামূলক’। কাতারে এই প্রথম নারীরা সরকারি চাকরির বাইরে সামরিক বাহিনীতে ভূমিকা পালনের সুযোগ পাচ্ছেন।

নতুন আইন, সামরিক প্রশিক্ষণ নিতে হবে নারীদেরকেও 1

এর আগের আইন অনুসারে, কাতারের যেসব নাগরিক ব্যাচেলর ডিগ্রি অর্জন করেছেন তাদের জন্য তিন মাসের সামরিক প্রশিক্ষণ নেয়ার বিধান ছিল। যারা ব্যাচেলর ডিগ্রি নেন নি তাদের জন্য চার মাসের প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক ছিল। কিন্তু নতুন আইন অনুযায়ী, নাগরিকরা যে পর্যায়ের লেখাপড়া শেষ করুক না কেন তাদের জন্য এক বছরের সামরিক প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

কাতারি নাগরিকদের বয়স ১৮ হলেই দুই মাসের মধ্যে সরকারের কাছে রিপোর্ট করতে হবে অন্যথায় সর্বোচ্চ তিন বছরের কারাদণ্ড ও ১৩ হাজার ৭০০ ডলার জরিমানা করা হবে।

সৌদি আরব ও তার তিনটি সহযোগী দেশ যখন কাতারের ওপর সর্বাত্মক অবরোধ আরোপ করেছে তখন দোহার সরকার এই আইন করল। অনেক রাজনৈতিক ও সামরিক বিশেষজ্ঞ মনে করছেন, সৌদি আগ্রাসনের আশংকা থেকে কাতার সরকার নাগরিকদের সামরিক প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক করেছে।