কেন আর একটা সুযোগ চাইলেন জুকারবার্গ?

সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুকের নেতৃত্ব দেয়ার পক্ষে আপনি কি নিজেকে উপযুক্ত বলে মনে করেন? যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনে সাংবাদিক সম্মেলনে এক সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের মুখে খানিকটা থমকে গেলেন ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ। ধীর গলায় তাকে বলতে শোনা যায়, ‘ভুল তো হয়েছেই। কিন্তু আমাকে একটা সুযোগ দিন।’

নিজের হাতে ফেসবুককে তিনি গড়েছেন তিলে তিলে। জুকারবার্গ এবং ফেসবুক না কি সমার্থক! কিন্তু তথ্যফাঁসের অভিযোগ তো শুধুমাত্র ফেসবুককে ধাক্কা দেয়নি। তার পায়ের তলার মাটিও যে নড়বড়ে হয়েছে, সেটাও স্পষ্ট। নইলে বুধবার ওয়াশিংটনে দাঁড়িয়ে কেন তাকে বলতে হবে, ‘যেটা হয়েছে, সেটা আমার ভুল। আমাকে একটা সুযোগ দিন।’

ফেসবুকের পরিচালক বোর্ড কি তাকে সরে দাঁড়াতে বলেছে, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নকে যেন পাশ কাটিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন জুকারবার্গ। তার কথায়, ‘এমন কোনো কথা আমার কানে আসেনি। তথ্যফাঁসের জন্য এখনও কাউকে বরখাস্ত করেনি ফেসবুক। একটা ভুলের জন্য কাউকে চলন্ত বাসের নিচে ফেলে দেয়ার পক্ষপাতী আমি নই।’

অভিযোগ উঠেছে, ফেসবুকের মাধ্যমে প্রায় ৯ লাখ মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য হাতে পেয়েছিল ব্রিটিশ সংস্থা কেমব্রিজ অ্যানালাইটিকা। সেই তথ্য ব্যবহার করা হয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ভোটে জয়ী করার জন্য। আগামী সপ্তাহেই সব অভিযোগের জবাব দেয়ার জন্য জুকারবার্গকে দাঁড়াতে হবে মার্কিন কংগ্রেসের বিশেষ কমিটির সামনে।

তবে ফেসবুকের সমস্যা যে দ্রুত মিটে যাবে, এমন আশ্বাস দেননি মার্ক জুকারবার্গ। তিনি বলেন, ‘এ ধরনের সমস্যার মোকাবিলার জন্য বেশ কিছু সময় দরকার।’ তবে জুকারবার্গ জানিয়েছেন, লড়াইটা তিনি চালিয়ে যাবেন।