এক মাসে ১০৫ কোটি টাকার চোরাচালান-মাদক দ্রব্য আটক

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) গত মার্চ মাসে দেশের সীমান্ত এলাকাসহ অন্যান্য স্থানে অভিযান চালিয়ে ১০৫ কোটি ১২ লাখ ১৬ হাজার টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রকারের চোরাচালান ও মাদক দ্রব্য আটক করেছে। বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ মহসিন রেজা এ তথ্য জানিয়েছেন।

আটককৃত মাদকের মধ্যে রয়েছে ২১ লাখ ৪৫ হাজার ৯০১ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৮ হাজার ৫৫২ বোতল বিদেশী মদ, ১৬৮ লিটার বাংলা মদ, ৪ হাজার ৫০৮ ক্যান বিয়ার, ৩৩ হাজার ১৩ বোতল ফেনসিডিল, ২ হাজার ২২০ কেজি গাঁজা, ৫ কেজি ৭০০ গ্রাম হেরোইন, ৫ হাজার ৭৮৫টি এ্যানেগ্রা/সেনেগ্রা ট্যাবলেট, নেশাজাতীয় ইনজেকশন ১ হাজার ৩১৫টি এবং ১৪ লাখ ৭৬ হাজার ৭৬০টি অন্যান্য ট্যাবলেট।

আটককৃত অন্যান্য চোরাচালান দ্রব্যের মধ্যে ১৩ কেজি ৪৫০ গ্রাম স্বর্ণ, ৮ হাজার ৪৬০টি শাড়ী, ১ হাজার ৬৪৪টি থ্রিপিস/শার্টপিস, ১৮৬ মিটার থান কাপড়, ৯৫০টি তৈরী পোশাক ও ৪০ হাজার ৯১৯ সিএফটি কাঠ। উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে ৩টি পিস্তল, ২টি বন্দুক, ১টি রিভলভার, ১৩ রাউন্ড গুলি এবং ৩টি ম্যাগাজিন।

এছাড়াও বিজিবি’র অভিযানে মাদক পাচারসহ অন্যান্য চোরাচালানে জড়িত থাকার অভিযোগে ১১৩ জন এবং অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রমের দায়ে ১৭৫ জন বাংলাদেশী নাগরিককে আটক করে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। ভারত থেকে বাংলাদেশে অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রমের দায়ে ১৮ জন ভারতীয় নাগরিককে আটক করে বিএসএফ এর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। উল্লেখ্য, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত বিজিবি ৩০৮ কোটি ৫৩ লাখ ৭১ হাজার টাকা মূল্যের বিভিন্ন প্রকারের চোরাচালান ও মাদক দ্রব্য আটক করেছে।