সরকারের সহযোগিতায় চাকরি করবে রাজীব

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বেপরোয়া দুই বাসের চাপায় হাত হারানো তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব হোসেন (২১) এখনও আশঙ্কামুক্ত নন। তিনি সুস্থ হওয়ার পর সরকার তার চাকরির ব্যবস্থা করে দেবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাজীবকে দেখতে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। মন্ত্রী বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় হাত হারানো রাজীবকে দেখতে এসেছি। বিষয়টি সত্যিই দুঃখজনক।

দুর্ঘটনার পরপরই তাৎক্ষণিকভাবে তাকে পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। গতকাল থেকে ঢামেক হাসপাতালে তার পুরোদমে চিকিৎসা চলছে। নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) তার চিকিৎসা চলছে। সরকারের পক্ষ থেকে রাজীবকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সুস্থ হলে তাকে আমরা যে কোনো একটা সংস্থায় চাকরির ব্যবস্থা করবো। আর হাইকোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী বাস মালিকরা সব চিকিৎসার ব্যয় বহন করবে।

ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল একেএম নাসির উদ্দিন বলেন, বুধবার বিকেল ৫টার দিকে রাজীবকে আমাদের এখানে নিয়ে আসা হয়। রাতেই আইসিইউতে পাঠানো হয়েছে। সে মাথায়ও আঘাত পেয়েছে এবং ভেতরে রক্তক্ষরণ হয়েছে। তাই তাকে আশঙ্কামুক্ত বলতে আরও কিছুটা সময় লাগবে। এ মুহূর্তে তার হাত প্রতিস্থাপন করার সুযোগ নেই, ভবিষ্যতে দেখা যাবে। তার সব চিকিৎসা ব্যয় সমন্বয় করার কথাও জানান ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক।

৩ এপ্রিল দুপুরে বিআরটিসির একটি দোতলা বাসের পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে গন্তব্যের উদ্দেশে যাচ্ছিলেন মহাখালীর সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতকের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেন। বাসটি হোটেল সোনারগাঁওয়ের বিপরীতে পান্থকুঞ্জ পার্কের সামনে পৌঁছলে হঠাৎ পেছন থেকে স্বজন পরিবহনের একটি বাস বিআরটিসি বাসটির গা ঘেঁষে অতিক্রম করে। দুই বাসের প্রবল চাপে গাড়ির পেছনে দাঁড়িয়ে থাকা রাজীবের হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।